ঢাকা ০৬:৩৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দরিভালের ব্রাজিল অধ্যায় শুরু

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৪১:৪৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০২৪ ৩৯ বার পড়া হয়েছে

নিউজ ডেস্ক


চোটের ছোবলে সেরা একাদশ বাছাই করাই দায়। এরপরও নতুন কোচের হাত ধরে বেশ আত্মবিশ্বাসী ফুটবল খেলল ব্রাজিল। তবে মিলছিল না গোলের দেখা। শেষ দিকে বদলি নেমে সেই অপূর্ণতা ঘোচালেন এন্দ্রিক। লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে শনিবার (২৩ মার্চ) রিবাগত রাতের প্রীতি ম্যাচে এন্দ্রিকের ওই একমাত্র গোলে জয়ের হাসি হেসেছে ব্রাজিল। দরিভালের কোচিংয়ে এটাই তাদের প্রথম ম্যাচ।

গত বছর ৯ ম্যাচ খেলে পাঁচটিতেই হারে ব্রাজিল; ১৯৬৩ সালের পর প্রথমবারের মতো এক বছরে জয়ের চেয়ে বেশি হারের বিব্রতকর রেকর্ড গড়ে দলটি। বছর শেষ করে টানা চার ম্যাচ জয়শূন্য থেকে, বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ড্রয়ের পর হারে সবশেষ তিন ম্যাচে; উরুগুয়ে, কলম্বিয়া ও ঘরের মাঠে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে। ছয় মাস পর অবশেষে এবার জয়ের স্বাদ পেল রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্বকাপ জয়ীরা।

ব্রাজিলের শুরুর একাদশে অভিষেক হয় পাঁচ জনের। ঢিমেতালে শুরু ম্যাচে নবম মিনিটে প্রথম সুযোগটা পায় সফরকারীরা। ২০ গজ দূর থেকে রদ্রিগোর শট ঝাঁপিয়ে রুখে দেন গোলরক্ষক। দ্বাদশ মিনিটে আবারও ব্রাজিলের হানা। লুকাস পাকেতার উঁচু করে বাড়ানো থ্রু বল ধরে গতিতে সবাইকে পেছনে ফেলে বক্সে ঢুকে পড়েন ভিনিসিউস জুনিয়র, সামনে তখন একমাত্র বাধা গোলরক্ষক। তবে এমন দুর্বল শট তিনি নিলেন যে, গোলরক্ষককে ফাঁকি দিলেও বল গোললাইন পর্যন্ত পৌঁছাল না, অনায়াসে ঠেকিয়ে দিলেন কাইল ওয়াকার। এমন সুবর্ণ সুযোগ হেলায় হারিয়ে মাথায় হাত উঠে যায় রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ডের।
পরের চার মিনিটে আরও দুইটি ভালো আক্রমণ শাণায় ব্রাজিল, কিন্তু কোনোটিতেই সাফল্যের দেখা মেলেনি। ১৮তম মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগ পায় ইংল্যান্ড, কিন্তু ছয় গজ বক্সের বাইরে থেকে শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি ওলি ওয়াটকিন্স। ২০তম মিনিটে বড় একটি ধাক্কা খায় ইংল্যান্ড। পায়ে অস্বস্তি বোধ করা অধিনায়ক ও অভিজ্ঞ রাইট-ব্যাক ওয়াকারকে তুলে নেন কোচ। দুর্ভাগ্যের ফেরে ৩৫তম মিনিটে গোলবঞ্চিত হয় ব্রাজিল। ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেডের মিডফিল্ডার পাকেতার শট সবাইকে ফাঁকি দিলেও পোস্টের বাধা এড়াতে পারেনি।

প্রথম পছন্দের দুই গোলরক্ষক আলিসন ও এদেরসনের চোটে সেলেসাওদের পোস্ট সামলানোর দায়িত্ব পান বেন্তো। প্রথম ৪০ মিনিটে তাকে তেমন কোনো পরীক্ষার মুখেই পড়তে হয়নি। ইংল্যান্ড যে লক্ষ্যে কোনো শটই নিতে পারছিল না।৩৭তম মিনিটে লক্ষ্যে প্রথম শট নেয় স্বাগতিকরা, তবে ফিল ফোডেনের সোজাসুজি দুর্বল শট ঠেকাতে একটুও বেগ পেতে হয়নি বেন্তোকে। চার মিনিট পর তিনি অ্যান্থনি গর্ডনের শটও ঝাঁপিয়ে রুখে দেন।

বিরতির পর ব্রাজিলের খেলায় কিছুটা ছন্দপতন ঘটে। তাতে ইংল্যান্ড চাপ বাড়ালেও উল্লেখযোগ্য কিছু করতে পারছিল না তারাও। ৬৩তম মিনিটে বরং সফরকারীরা এগিয়ে যাওয়ার ভালো সুযোগ তৈরি করে, কিন্তু পাকেতার প্রচেষ্টা অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৭১তম মিনিটে রদ্রিগোকে তুলে তরুণ সেনসেশন এন্দ্রিককে নামান ব্রাজিল কোচ। মাঠে নামার ৯ মিনিটের মাথায় দলকে কাঙ্ক্ষিত গোল এনে দেন ১৭ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড।

গোলটিতে জড়িয়ে আছে ভিনিসিউসের নামও। রিয়াল তারকার শট গোলরক্ষক জর্ডান পিকফোর্ড ঠেকিয়ে দিলেও দলকে বিপদমুক্ত করতে পারেননি, ফিরতি বল পেয়ে অনায়াসে জালে পাঠান এন্দ্রিক। জাতীয় দলের হয়ে তৃতীয় ম্যাচে প্রথম গোলের দেখা পেলেন এন্দ্রিক। ১৮ বছর পূর্ণ হলে পালমাইরাস থেকে আগামী গ্রীষ্মে রিয়ালে যোগ দেবেন তিনি।

পিছিয়ে পড়ে ইংল্যান্ড আরেকটু তেতে উঠবে কী, উল্টো তারা যেন বিবর্ণ হয়ে পড়ে। বাকি সময়ে তারা বেন্তোকে একবারের জন্যও পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি। একেবারে শেষ সময়ে এন্দ্রিক দ্বিতীয় গোলের দেখা পেতেও পারতেন। তবে তার শট ঠেকিয়ে ব্যবধান বড় হতে দেননি পিকফোর্ড। ওয়েম্বলিতে ২১ ম্যাচের মধ্যে প্রথম হারের স্বাদ নিয়ে মাঠ ছাড়ে হ্যারি কেইনকে ছাড়া খেলা ইংল্যান্ড। এখানে তারা সবশেষ হেরেছিল ২০২০ সালের অক্টোবরে, উয়েফা নেশন্স লিগে ডেনমার্কের বিপক্ষে।


প্রসঙ্গনিউজ২৪/জে.সি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দরিভালের ব্রাজিল অধ্যায় শুরু

আপডেট সময় : ০৩:৪১:৪৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০২৪

নিউজ ডেস্ক


চোটের ছোবলে সেরা একাদশ বাছাই করাই দায়। এরপরও নতুন কোচের হাত ধরে বেশ আত্মবিশ্বাসী ফুটবল খেলল ব্রাজিল। তবে মিলছিল না গোলের দেখা। শেষ দিকে বদলি নেমে সেই অপূর্ণতা ঘোচালেন এন্দ্রিক। লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে শনিবার (২৩ মার্চ) রিবাগত রাতের প্রীতি ম্যাচে এন্দ্রিকের ওই একমাত্র গোলে জয়ের হাসি হেসেছে ব্রাজিল। দরিভালের কোচিংয়ে এটাই তাদের প্রথম ম্যাচ।

গত বছর ৯ ম্যাচ খেলে পাঁচটিতেই হারে ব্রাজিল; ১৯৬৩ সালের পর প্রথমবারের মতো এক বছরে জয়ের চেয়ে বেশি হারের বিব্রতকর রেকর্ড গড়ে দলটি। বছর শেষ করে টানা চার ম্যাচ জয়শূন্য থেকে, বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ড্রয়ের পর হারে সবশেষ তিন ম্যাচে; উরুগুয়ে, কলম্বিয়া ও ঘরের মাঠে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে। ছয় মাস পর অবশেষে এবার জয়ের স্বাদ পেল রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্বকাপ জয়ীরা।

ব্রাজিলের শুরুর একাদশে অভিষেক হয় পাঁচ জনের। ঢিমেতালে শুরু ম্যাচে নবম মিনিটে প্রথম সুযোগটা পায় সফরকারীরা। ২০ গজ দূর থেকে রদ্রিগোর শট ঝাঁপিয়ে রুখে দেন গোলরক্ষক। দ্বাদশ মিনিটে আবারও ব্রাজিলের হানা। লুকাস পাকেতার উঁচু করে বাড়ানো থ্রু বল ধরে গতিতে সবাইকে পেছনে ফেলে বক্সে ঢুকে পড়েন ভিনিসিউস জুনিয়র, সামনে তখন একমাত্র বাধা গোলরক্ষক। তবে এমন দুর্বল শট তিনি নিলেন যে, গোলরক্ষককে ফাঁকি দিলেও বল গোললাইন পর্যন্ত পৌঁছাল না, অনায়াসে ঠেকিয়ে দিলেন কাইল ওয়াকার। এমন সুবর্ণ সুযোগ হেলায় হারিয়ে মাথায় হাত উঠে যায় রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ডের।
পরের চার মিনিটে আরও দুইটি ভালো আক্রমণ শাণায় ব্রাজিল, কিন্তু কোনোটিতেই সাফল্যের দেখা মেলেনি। ১৮তম মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগ পায় ইংল্যান্ড, কিন্তু ছয় গজ বক্সের বাইরে থেকে শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি ওলি ওয়াটকিন্স। ২০তম মিনিটে বড় একটি ধাক্কা খায় ইংল্যান্ড। পায়ে অস্বস্তি বোধ করা অধিনায়ক ও অভিজ্ঞ রাইট-ব্যাক ওয়াকারকে তুলে নেন কোচ। দুর্ভাগ্যের ফেরে ৩৫তম মিনিটে গোলবঞ্চিত হয় ব্রাজিল। ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেডের মিডফিল্ডার পাকেতার শট সবাইকে ফাঁকি দিলেও পোস্টের বাধা এড়াতে পারেনি।

প্রথম পছন্দের দুই গোলরক্ষক আলিসন ও এদেরসনের চোটে সেলেসাওদের পোস্ট সামলানোর দায়িত্ব পান বেন্তো। প্রথম ৪০ মিনিটে তাকে তেমন কোনো পরীক্ষার মুখেই পড়তে হয়নি। ইংল্যান্ড যে লক্ষ্যে কোনো শটই নিতে পারছিল না।৩৭তম মিনিটে লক্ষ্যে প্রথম শট নেয় স্বাগতিকরা, তবে ফিল ফোডেনের সোজাসুজি দুর্বল শট ঠেকাতে একটুও বেগ পেতে হয়নি বেন্তোকে। চার মিনিট পর তিনি অ্যান্থনি গর্ডনের শটও ঝাঁপিয়ে রুখে দেন।

বিরতির পর ব্রাজিলের খেলায় কিছুটা ছন্দপতন ঘটে। তাতে ইংল্যান্ড চাপ বাড়ালেও উল্লেখযোগ্য কিছু করতে পারছিল না তারাও। ৬৩তম মিনিটে বরং সফরকারীরা এগিয়ে যাওয়ার ভালো সুযোগ তৈরি করে, কিন্তু পাকেতার প্রচেষ্টা অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৭১তম মিনিটে রদ্রিগোকে তুলে তরুণ সেনসেশন এন্দ্রিককে নামান ব্রাজিল কোচ। মাঠে নামার ৯ মিনিটের মাথায় দলকে কাঙ্ক্ষিত গোল এনে দেন ১৭ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড।

গোলটিতে জড়িয়ে আছে ভিনিসিউসের নামও। রিয়াল তারকার শট গোলরক্ষক জর্ডান পিকফোর্ড ঠেকিয়ে দিলেও দলকে বিপদমুক্ত করতে পারেননি, ফিরতি বল পেয়ে অনায়াসে জালে পাঠান এন্দ্রিক। জাতীয় দলের হয়ে তৃতীয় ম্যাচে প্রথম গোলের দেখা পেলেন এন্দ্রিক। ১৮ বছর পূর্ণ হলে পালমাইরাস থেকে আগামী গ্রীষ্মে রিয়ালে যোগ দেবেন তিনি।

পিছিয়ে পড়ে ইংল্যান্ড আরেকটু তেতে উঠবে কী, উল্টো তারা যেন বিবর্ণ হয়ে পড়ে। বাকি সময়ে তারা বেন্তোকে একবারের জন্যও পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি। একেবারে শেষ সময়ে এন্দ্রিক দ্বিতীয় গোলের দেখা পেতেও পারতেন। তবে তার শট ঠেকিয়ে ব্যবধান বড় হতে দেননি পিকফোর্ড। ওয়েম্বলিতে ২১ ম্যাচের মধ্যে প্রথম হারের স্বাদ নিয়ে মাঠ ছাড়ে হ্যারি কেইনকে ছাড়া খেলা ইংল্যান্ড। এখানে তারা সবশেষ হেরেছিল ২০২০ সালের অক্টোবরে, উয়েফা নেশন্স লিগে ডেনমার্কের বিপক্ষে।


প্রসঙ্গনিউজ২৪/জে.সি