ঢাকা ০৬:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টেকনাফের বার্মিজ মার্কেটে ভয়াবহ আগুন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৪০:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুলাই ২০২৩ ৪৬ বার পড়া হয়েছে

নিউজ ডেস্ক:


কক্সবাজারের টেকনাফের বার্মিজ মার্কেটে ভয়াবহ আগুনে কাপড়, জুতা-স্যান্ডেল, কসমেটিক ও মুদিখানাসহ নানা ধরনের দেড় শতাধিক দোকান পুড়ে ছাই হয়েছে। মালামালের পাশাপাশি পুড়ে গেছে নগদ টাকা ও অন্যান্য সরঞ্জাম। আগুনে প্রায় অর্ধশত কোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করছেন ব্যবসায়ীরা।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) দিবাগত মধ্যরাত ২টার দিকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে টেকনাফ পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের উপরের বাজার নামক বার্মিজ মার্কেটে আগুন লাগে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পুড়ে যাওয়া বার্মিজ মার্কেটের পাহারাদার মোহাম্মদ কাইয়ুম বলেন, বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে মার্কেটে হঠাৎ আগুন জ্বলে ওঠে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই বাতাসের কারণে আগুন দ্রুত চারদিক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট, পুলিশ ও বিজিবি, উপজেলা প্রশাসনের সদস্যসহ স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়। দীর্ঘ তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর ভোর ৫টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।
উপরের বাজার বার্মিজ মার্কেট সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. ইলিয়াস বলেন, প্রাথমিক হিসাব অনুযায়ী মার্কেটের ৮৫টি কাপড়ের দোকান, ২০টি কসমেটিকস দোকান এবং আচার ও বিবিধ পণ্যের ২০ থেকে ২৫টি দোকান এবং ১৫ থেকে ২০টি মুদিখানাসহ প্রায় দেড়শ’র অধিক দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের টেকনাফ স্টেশনের কর্মকর্তা মুকুল কুমার নাথ বলেন, আগুন লাগার খবর পেয়ে আমরা ছুটে যাই। আগুন নেভাতে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট কাজ করে। দীর্ঘ তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণ করা গেছে। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান বলেন, পৌরসভার বার্মিজ মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার খবর পেয়ে আমরা ছুটে যাই। স্থানীয় লোকজনসহ ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ ও বিজিবির সদস্যরা মিলে আগুন নিয়ন্ত্রণসহ দোকানে আটকেপড়া লোকজনকে উদ্ধারে তৎপরতা চালানো হয়। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, প্রায় দেড় শতাধিক দোকান পুড়ে গেছে। পুড়ে গেছে সিংহভাগ মালামাল। এতে প্রায় শত কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

টেকনাফের বার্মিজ মার্কেটে ভয়াবহ আগুন

আপডেট সময় : ০৬:৪০:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুলাই ২০২৩

নিউজ ডেস্ক:


কক্সবাজারের টেকনাফের বার্মিজ মার্কেটে ভয়াবহ আগুনে কাপড়, জুতা-স্যান্ডেল, কসমেটিক ও মুদিখানাসহ নানা ধরনের দেড় শতাধিক দোকান পুড়ে ছাই হয়েছে। মালামালের পাশাপাশি পুড়ে গেছে নগদ টাকা ও অন্যান্য সরঞ্জাম। আগুনে প্রায় অর্ধশত কোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করছেন ব্যবসায়ীরা।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) দিবাগত মধ্যরাত ২টার দিকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে টেকনাফ পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের উপরের বাজার নামক বার্মিজ মার্কেটে আগুন লাগে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পুড়ে যাওয়া বার্মিজ মার্কেটের পাহারাদার মোহাম্মদ কাইয়ুম বলেন, বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে মার্কেটে হঠাৎ আগুন জ্বলে ওঠে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই বাতাসের কারণে আগুন দ্রুত চারদিক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট, পুলিশ ও বিজিবি, উপজেলা প্রশাসনের সদস্যসহ স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়। দীর্ঘ তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর ভোর ৫টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।
উপরের বাজার বার্মিজ মার্কেট সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. ইলিয়াস বলেন, প্রাথমিক হিসাব অনুযায়ী মার্কেটের ৮৫টি কাপড়ের দোকান, ২০টি কসমেটিকস দোকান এবং আচার ও বিবিধ পণ্যের ২০ থেকে ২৫টি দোকান এবং ১৫ থেকে ২০টি মুদিখানাসহ প্রায় দেড়শ’র অধিক দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের টেকনাফ স্টেশনের কর্মকর্তা মুকুল কুমার নাথ বলেন, আগুন লাগার খবর পেয়ে আমরা ছুটে যাই। আগুন নেভাতে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট কাজ করে। দীর্ঘ তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণ করা গেছে। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান বলেন, পৌরসভার বার্মিজ মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার খবর পেয়ে আমরা ছুটে যাই। স্থানীয় লোকজনসহ ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ ও বিজিবির সদস্যরা মিলে আগুন নিয়ন্ত্রণসহ দোকানে আটকেপড়া লোকজনকে উদ্ধারে তৎপরতা চালানো হয়। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, প্রায় দেড় শতাধিক দোকান পুড়ে গেছে। পুড়ে গেছে সিংহভাগ মালামাল। এতে প্রায় শত কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি