ঢাকা ০৪:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সতন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে রাজশাহী -৪(বাগমারা) মনোনয়ন জমা দিলেন এনামুল হক

খ্রীষ্টফার জয়
  • আপডেট সময় : ০১:০১:২২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ নভেম্বর ২০২৩ ৭৮ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিনিধি:


রাজশাহী-৪(বাগমারা) আসনে তিন বারের সফল সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক বলেছেন, আগামী ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে দলীয় প্রার্থী ঘোষণা করলেও যোগ্য ও দলের জন্য নিবেদিত অনেক প্রার্থী বাদ পড়েছে।

তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দিয়েছে অনেক যোগ্য প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়া সম্ভব হয়নি। সে কারনে প্রতিটি আসনে যে কোন প্রার্থী ভোট করতে পারবেন। সে জন্য বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সহ আপামর জনগণকে সাথে নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বদ্বীতা করবো।

শান্তির বাগমারায় আর অশান্তি সৃষ্টি করতে দেয়া হবে না। বাগমারার মানুষ অনেক শান্তিতে আছে। বাগমারাকে আর রক্তাক্ত করার সুযোগ দেয়া যাবে না। বাগমারাবাসী আমার সাথে আছে। আমি আপনাদের সাথে নিয়ে ভোটের মাঠে লড়তে চাই। তাই বিগত দিনের মতো আমাকে যে ভাবে সমর্থন দিয়েছেন সে ধারা অব্যাহত রাখবেন।

আমি বাগমারাবাসীর পাশে আছি। বাগমারাবাসীর ভালোবাসায় আমি অভিভুত। ভোটের মাঠে কারো রক্তচক্ষুকে ভয় পাবেন না। কেউ আপনাদের ক্ষতি করতে পারবে না। বাগমারার মাটিকে কোন সন্ত্রাসী ক্যাডার বাহিনীর কাছে ছেড়ে দেয়া যাবে না। আর কোন মানুষকে আতঙ্কের কবলে ঠেলে দিতে চাই না।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় উপজেলা সহকারি রিটানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল শেষে ভবানীগঞ্জ নিউ মার্কেট মিলনায়তনে উপজেলার আপামর জনগণের সাথে মতবিনিময় কালে এসব কথা বলেন তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বাগমারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অনিল কুমার সরকার, বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও ভবানীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আব্দুল মালেক মন্ডল, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান টুকু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, দপ্তর সম্পাদক নূরুল ইসলাম, কাউন্সিলর হাচেন আলী, এনাগ্রুপের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোসলেহ উদ্দিন, জিএম আইটি মানিকুজ্জামান খাঁন, এজিএম আসিফ রহমান প্রমুখ।

উল্লেখ, আওয়ামীলীগ সরকার দেশের উন্নয়নে যে ভাবে কাজ করে চলেছেন তা আগের কোন সরকার করেননি।

জনতার ঢল

২০০৮ সালের নির্বাচনে ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের হাত ধরে বাগমারা আসনটি ফিরে পায় আওয়ামী লীগ। সেই থেকে আওয়ামী লীগের কব্জায় আছে আসনটি।টানা চতুর্থ বারের মতো এই আসনটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে প্রস্তুত উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অংগ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

২০০৮ সাল থেকে বাগমারার প্রত্যন্ত অঞ্চলসহ সকল জায়গায় আশানুরুপ উন্নয়ন সংগঠিত করেছেন আওয়ামী লীগ সরকার। সেই উন্নয়নকে পুজি করে এবারও স্বতস্ত্র প্রাথী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেন তিন বারের সফল সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক।মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক সাংবাদিকদের বলেছেন, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এলাকার উন্নয়নের পাশাপাশি জনগণের কাজ করেছি। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চতুর্থ বারের মতো জনগণকে সাথে নির্বাচন করবো।

ভোটার আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করলে এলাকার যেটুকু অবশিষ্ট কাজ আছে তা সম্পন্ন করতে পারবো। চতুর্থ বারের মতো মনোনয়নপত্র জমা দেয়ায় আগে ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপি বাগমারা উপজেলার হাজার হাজার মানুষ নিয়ে দোয়া করেন।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

সতন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে রাজশাহী -৪(বাগমারা) মনোনয়ন জমা দিলেন এনামুল হক

আপডেট সময় : ০১:০১:২২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ নভেম্বর ২০২৩

নিজস্ব প্রতিনিধি:


রাজশাহী-৪(বাগমারা) আসনে তিন বারের সফল সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক বলেছেন, আগামী ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে দলীয় প্রার্থী ঘোষণা করলেও যোগ্য ও দলের জন্য নিবেদিত অনেক প্রার্থী বাদ পড়েছে।

তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দিয়েছে অনেক যোগ্য প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়া সম্ভব হয়নি। সে কারনে প্রতিটি আসনে যে কোন প্রার্থী ভোট করতে পারবেন। সে জন্য বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সহ আপামর জনগণকে সাথে নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বদ্বীতা করবো।

শান্তির বাগমারায় আর অশান্তি সৃষ্টি করতে দেয়া হবে না। বাগমারার মানুষ অনেক শান্তিতে আছে। বাগমারাকে আর রক্তাক্ত করার সুযোগ দেয়া যাবে না। বাগমারাবাসী আমার সাথে আছে। আমি আপনাদের সাথে নিয়ে ভোটের মাঠে লড়তে চাই। তাই বিগত দিনের মতো আমাকে যে ভাবে সমর্থন দিয়েছেন সে ধারা অব্যাহত রাখবেন।

আমি বাগমারাবাসীর পাশে আছি। বাগমারাবাসীর ভালোবাসায় আমি অভিভুত। ভোটের মাঠে কারো রক্তচক্ষুকে ভয় পাবেন না। কেউ আপনাদের ক্ষতি করতে পারবে না। বাগমারার মাটিকে কোন সন্ত্রাসী ক্যাডার বাহিনীর কাছে ছেড়ে দেয়া যাবে না। আর কোন মানুষকে আতঙ্কের কবলে ঠেলে দিতে চাই না।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় উপজেলা সহকারি রিটানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল শেষে ভবানীগঞ্জ নিউ মার্কেট মিলনায়তনে উপজেলার আপামর জনগণের সাথে মতবিনিময় কালে এসব কথা বলেন তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বাগমারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অনিল কুমার সরকার, বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও ভবানীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আব্দুল মালেক মন্ডল, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান টুকু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, দপ্তর সম্পাদক নূরুল ইসলাম, কাউন্সিলর হাচেন আলী, এনাগ্রুপের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোসলেহ উদ্দিন, জিএম আইটি মানিকুজ্জামান খাঁন, এজিএম আসিফ রহমান প্রমুখ।

উল্লেখ, আওয়ামীলীগ সরকার দেশের উন্নয়নে যে ভাবে কাজ করে চলেছেন তা আগের কোন সরকার করেননি।

জনতার ঢল

২০০৮ সালের নির্বাচনে ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের হাত ধরে বাগমারা আসনটি ফিরে পায় আওয়ামী লীগ। সেই থেকে আওয়ামী লীগের কব্জায় আছে আসনটি।টানা চতুর্থ বারের মতো এই আসনটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে প্রস্তুত উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অংগ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

২০০৮ সাল থেকে বাগমারার প্রত্যন্ত অঞ্চলসহ সকল জায়গায় আশানুরুপ উন্নয়ন সংগঠিত করেছেন আওয়ামী লীগ সরকার। সেই উন্নয়নকে পুজি করে এবারও স্বতস্ত্র প্রাথী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেন তিন বারের সফল সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক।মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক সাংবাদিকদের বলেছেন, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এলাকার উন্নয়নের পাশাপাশি জনগণের কাজ করেছি। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চতুর্থ বারের মতো জনগণকে সাথে নির্বাচন করবো।

ভোটার আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করলে এলাকার যেটুকু অবশিষ্ট কাজ আছে তা সম্পন্ন করতে পারবো। চতুর্থ বারের মতো মনোনয়নপত্র জমা দেয়ায় আগে ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপি বাগমারা উপজেলার হাজার হাজার মানুষ নিয়ে দোয়া করেন।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি