ঢাকা ০৭:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নওগাঁর চৌমাশিয়ায় ৫ দফা দাবিতে আদিবাসীদের সড়ক অবরোধ

মিখায়েল টুডু
  • আপডেট সময় : ০৫:৫৩:০৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ জুলাই ২০২৩ ১৪২ বার পড়া হয়েছে

নওগাঁর চৌমাশিয়ায় ৫ দফা দাবিতে আদিবাসীদের সড়ক অবরোধ

নিজস্ব  প্রতিবেদক:


নওগাঁর চৌমাশিয়া (নওহাটা)মোড়ে সাংবিধানিক স্বীকৃতিসহ ৫ দফা দাবিতে আদিবাসীরা সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করে। ৯ জুলাই (রবিবার) বেলা ১১ টায় রাজশাহী বিভাগে বসবাসরত আদিবাসীরা সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করে।সড়ক অবরোধ করে আদিবাসীরা ৫ টি দাবি উত্থাপন করেন। দাবিগুলো হলো-১, বাদপড়া জাতিসত্তাকে অন্তর্ভুক্ত করে আদিবাসী হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি প্রদান করতে হবে।

২) সমতল আদিবাসীদের জন্য আলাদা ভূমি কমিশন ও পৃথক মন্ত্রণালয় গঠন করতে হবে।

৩) সরকারি চাকরিতে আদিবাসীদের কোটা পুনর্বহাল করতে হবে এবং উচ্চশিক্ষায় আদিবাসীদের কোটা বাস্তবায়ন করতে হবে।

৪)গাইবান্ধা জেলার সাহেবগঞ্জ বাগদা ফার্মের তিন সাঁওতাল হত্যার বিচার এবং রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে সেচের পানি না দেওয়ায় দুই কৃষক অভিনাথ মার্ডী এবং রবি মার্ডীর আত্মহত্যার প্ররোচনাকারীদের বিচার ও ক্ষতিপূরণ প্রদান এবং নওগাঁর মহাদেবপুরে আদিবাসী নেতা আলফ্রেড সরেনের চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের দ্রুত বিচার করতে হবে।

৫)সারাদেশে আদিবাসীদের উপর নির্যাতন,হত্যা, ধর্ষন,অপহরণ, জমি জবর দখল,মিথ্যা মামলা,লুটপাট,পুলিশি হয়রানি, আদিবাসীদের উন্নয়নের নামে বরাদ্দকৃত অর্থ আত্মসাৎ, ভূমি অফিসের ঘুষ দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে।

উক্ত কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন। তিনি বলেন,”অবিলম্বে সরকারকে আদিবাদীদের দাবিগুলো পূরণ করতে হবে।নির্বাচনের ইশতেহার দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে।আদিবাসীদেরও আত্মত্যাগ রয়েছে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে। আদিবাসীদের সাথে প্রতারণা করা চলবে না। উপজেলায় আদিবাসীদের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ আত্মসাৎ বড় একটা লজ্জার” ।

তিনি আরো বলেন, ” আমাদের অধিকার আদায়ের জন্য আমাদের আরো আন্দোলন করতে হবে।সরকারের কানে যতক্ষণ পর্যন্ত না পৌঁছায়। আগামী ৩ রা সেপ্টেম্বর ঢাকায় আমরা অবরোধ কর্মসূচি পালন করব।তাই অধিকার আাদায়ের জন্য কোন অবহেলা নয়।”

আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আদিবাসী সমিতির উপদেষ্টা আরিফ খান ইউসুফজাই।তিনি বলেন, উন্নয়নের নামে আদিবাসীরা যেন হয়রানির স্বীকার না হয়। বাগদাফার্মের ভূমিহারা আদিবাসীরা বর্ষার সময় কত কষ্ট করে তাবুর নিচে বসবাস করেন।তারা যেখানে বসবাস করে সেই ভূমি অবিলম্বে তাদের নামে ভুমি বরাদ্দ দিতে হবে এবং সরকারি অর্থায়নে বসতবাড়ি তৈরি করা হোক। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে।”

বক্তব্য রাখেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের মুখপাত্র এবং দপ্তর সম্পাদক সুভাষ চন্দ্র হেমরম।তিনি বলেন -” স্বাধীনতার ৫০ বছরেও বাংলাদেশের আদিবাসীরা সাংবিধানিক স্বীকৃতি পায় নি এটা অত্যন্ত লজ্জাজনক। এজন্য আমি ধিক্কার জানাচ্ছি। সরকার আদিবাসীদের সাথে প্রতারণা করছে। তাই নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়ন করে নি।মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি আমাদের কোটা কেড়ে নিয়েছে। পৃথক মন্ত্রণালয়ের প্রতিশ্রুতি পূরপ করে নি।বাগদা ফার্মের হত্যাকান্ড এবং বগুড়ায় আদিবাসীদের উপর হামলার সুষ্ঠু বিচার আজও হয় নি।”

সভাপতিত্ব করেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন।আরো উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক নরেন চন্দ্র পাহান,মার্টিন মুরমু,সদস্য সচিব,সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি।

উপস্থিত ছিলেন জয়নাল আবেদিন মুকুল,উপদেষ্টা, আদিবাসী পরিষদ ও আহবায়ক বাসদ,নওগাঁ জেলা শাখার। উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের আদিবাসী নেতৃবৃন্দ। উপস্থিত ছিলেন আদিবাসী যুব পরিষদ এবং ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

নওগাঁর চৌমাশিয়ায় ৫ দফা দাবিতে আদিবাসীদের সড়ক অবরোধ

আপডেট সময় : ০৫:৫৩:০৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ জুলাই ২০২৩

নিজস্ব  প্রতিবেদক:


নওগাঁর চৌমাশিয়া (নওহাটা)মোড়ে সাংবিধানিক স্বীকৃতিসহ ৫ দফা দাবিতে আদিবাসীরা সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করে। ৯ জুলাই (রবিবার) বেলা ১১ টায় রাজশাহী বিভাগে বসবাসরত আদিবাসীরা সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করে।সড়ক অবরোধ করে আদিবাসীরা ৫ টি দাবি উত্থাপন করেন। দাবিগুলো হলো-১, বাদপড়া জাতিসত্তাকে অন্তর্ভুক্ত করে আদিবাসী হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি প্রদান করতে হবে।

২) সমতল আদিবাসীদের জন্য আলাদা ভূমি কমিশন ও পৃথক মন্ত্রণালয় গঠন করতে হবে।

৩) সরকারি চাকরিতে আদিবাসীদের কোটা পুনর্বহাল করতে হবে এবং উচ্চশিক্ষায় আদিবাসীদের কোটা বাস্তবায়ন করতে হবে।

৪)গাইবান্ধা জেলার সাহেবগঞ্জ বাগদা ফার্মের তিন সাঁওতাল হত্যার বিচার এবং রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে সেচের পানি না দেওয়ায় দুই কৃষক অভিনাথ মার্ডী এবং রবি মার্ডীর আত্মহত্যার প্ররোচনাকারীদের বিচার ও ক্ষতিপূরণ প্রদান এবং নওগাঁর মহাদেবপুরে আদিবাসী নেতা আলফ্রেড সরেনের চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের দ্রুত বিচার করতে হবে।

৫)সারাদেশে আদিবাসীদের উপর নির্যাতন,হত্যা, ধর্ষন,অপহরণ, জমি জবর দখল,মিথ্যা মামলা,লুটপাট,পুলিশি হয়রানি, আদিবাসীদের উন্নয়নের নামে বরাদ্দকৃত অর্থ আত্মসাৎ, ভূমি অফিসের ঘুষ দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে।

উক্ত কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন। তিনি বলেন,”অবিলম্বে সরকারকে আদিবাদীদের দাবিগুলো পূরণ করতে হবে।নির্বাচনের ইশতেহার দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে।আদিবাসীদেরও আত্মত্যাগ রয়েছে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে। আদিবাসীদের সাথে প্রতারণা করা চলবে না। উপজেলায় আদিবাসীদের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ আত্মসাৎ বড় একটা লজ্জার” ।

তিনি আরো বলেন, ” আমাদের অধিকার আদায়ের জন্য আমাদের আরো আন্দোলন করতে হবে।সরকারের কানে যতক্ষণ পর্যন্ত না পৌঁছায়। আগামী ৩ রা সেপ্টেম্বর ঢাকায় আমরা অবরোধ কর্মসূচি পালন করব।তাই অধিকার আাদায়ের জন্য কোন অবহেলা নয়।”

আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আদিবাসী সমিতির উপদেষ্টা আরিফ খান ইউসুফজাই।তিনি বলেন, উন্নয়নের নামে আদিবাসীরা যেন হয়রানির স্বীকার না হয়। বাগদাফার্মের ভূমিহারা আদিবাসীরা বর্ষার সময় কত কষ্ট করে তাবুর নিচে বসবাস করেন।তারা যেখানে বসবাস করে সেই ভূমি অবিলম্বে তাদের নামে ভুমি বরাদ্দ দিতে হবে এবং সরকারি অর্থায়নে বসতবাড়ি তৈরি করা হোক। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে।”

বক্তব্য রাখেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের মুখপাত্র এবং দপ্তর সম্পাদক সুভাষ চন্দ্র হেমরম।তিনি বলেন -” স্বাধীনতার ৫০ বছরেও বাংলাদেশের আদিবাসীরা সাংবিধানিক স্বীকৃতি পায় নি এটা অত্যন্ত লজ্জাজনক। এজন্য আমি ধিক্কার জানাচ্ছি। সরকার আদিবাসীদের সাথে প্রতারণা করছে। তাই নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়ন করে নি।মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি আমাদের কোটা কেড়ে নিয়েছে। পৃথক মন্ত্রণালয়ের প্রতিশ্রুতি পূরপ করে নি।বাগদা ফার্মের হত্যাকান্ড এবং বগুড়ায় আদিবাসীদের উপর হামলার সুষ্ঠু বিচার আজও হয় নি।”

সভাপতিত্ব করেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন।আরো উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক নরেন চন্দ্র পাহান,মার্টিন মুরমু,সদস্য সচিব,সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি।

উপস্থিত ছিলেন জয়নাল আবেদিন মুকুল,উপদেষ্টা, আদিবাসী পরিষদ ও আহবায়ক বাসদ,নওগাঁ জেলা শাখার। উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের আদিবাসী নেতৃবৃন্দ। উপস্থিত ছিলেন আদিবাসী যুব পরিষদ এবং ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি