ঢাকা ০৫:৫১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোদাগাড়ীতে বিদ্যুৎ অফিসে সাংবাদিকের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে নির্বাহী প্রকৌশলী

জাহিদুল
  • আপডেট সময় : ০৫:৪৫:৪৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ জুন ২০২৩ ৭২ বার পড়া হয়েছে

গোদাগাড়ীতে বিদ্যুৎ অফিসে সাংবাদিকের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে নির্বাহী প্রকৌশলী

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি :


রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে বিদ্যুৎ অফিসে সাংবাদিকের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে নির্বাহী প্রকৌশলী। রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দৈনিক আলোকিত সকালের স্টাফ রিপোর্টার ও দৈনিক উপচার পত্রিকার মফস্বল সম্পাদক সারোয়ার সবুজ নেসকোর নির্বাহীর সঙ্গে দেখা করতে অফিসে গেলে মূল ফটকে নিরাপত্তায় নিয়োজিত আনসার সদস্যরা প্রবেশে বাধা দেয়। এ সময় সারোয়ার সবুজ সাংবাদিক পরিচয় দিলে আনসার সদস্য জানায়, যে নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হান অফিসে সাংবাদিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন স্টাফ জানান আপনারা নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে লেখালেখির কারণে নির্বাহী প্রকৌশলী আমাদেরকে সাংবাদিকদের ঢুকতে নিষেধ ও কোন কাজ না করার নির্দেশ দিয়েছেন।

উপজেলা সদর ডাইংপাড়া সদরে বিএনপি অফিসের পাশে এক ব্যবসায়ীর দোকানে বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশিত হলে ক্ষিপ্ত হয়ে সাংবাদিকদের উপর এই নিষেধাজ্ঞা দেন তিনি।

এদিকে গোদাগাড়ী পৌর এলাকার বিকাশ চন্দ্র সিংহ তার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য আবেদন করে। সরকারী জায়গায় দোকান ঘরে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার নিয়ম না থাকার অজুহাত দেখিয়ে ২০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করে। এই নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনওর)কাছে অভিযোগ করেন বিকাশ চন্দ্র সিংহ।

ইউএনও সঞ্জয় কুমার মহন্ত বলেন, বিকাশ চন্দ্র সিংহকে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে অনুরোধ জানিয়ে নির্বাহী প্রকৌশলীকে চিঠি দেয়া হয়েছে। গোদাগাড়ী এলাকার ভগমন্তপুর গ্রামের স্কুল শিক্ষক তৈয়বুর রহমান তার বিদ্যুৎ লাইনটি নষ্ট হয়ে গেলে নেসকোর অফিসে যায়। বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন তার কাছে ২ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করলে নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে অভিযোগ জানায়। কোন ব্যবস্থা গ্রহন না করে গালিগালাজ করে শিক্ষক তৈয়বুর রহমানকে অফিস থেকে বের করে দেয়। বিদ্যুৎ গ্রাহকরা অভিযোগ করেন গোদাগাড়ীতে নির্বাহী প্রকৌশলী হিসাবে আবু রায়হান যোগদানের পর থেকেই অফিসে অনিয়ম ও দুনীর্তি বেড়ে গেছে। এতে করে বিদ্যুৎ গ্রাহকরা ব্যাপক হয়রানীর শিকার হচ্ছে।

গোদাগাড়ী পৌরসভার প্যানেল মেয়র শহিদুল ইসলাম বলেন, ঘুষ ছাড়া সেবা পাওয়া যাচ্ছে না। নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হানের অনিয়ম ও দুনীর্তির অভিযোগ নেসকোর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে নেসকোর নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি সাংবাদিকদের ফোন ধরেনি। তবে নেসকোর বিতরণ অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ বলেন, সাংবাদিকদের প্রবেশে নির্বাহী প্রকৌশলী নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে না বিষয়টি দেখছি।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

গোদাগাড়ীতে বিদ্যুৎ অফিসে সাংবাদিকের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে নির্বাহী প্রকৌশলী

আপডেট সময় : ০৫:৪৫:৪৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ জুন ২০২৩

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি :


রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে বিদ্যুৎ অফিসে সাংবাদিকের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে নির্বাহী প্রকৌশলী। রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দৈনিক আলোকিত সকালের স্টাফ রিপোর্টার ও দৈনিক উপচার পত্রিকার মফস্বল সম্পাদক সারোয়ার সবুজ নেসকোর নির্বাহীর সঙ্গে দেখা করতে অফিসে গেলে মূল ফটকে নিরাপত্তায় নিয়োজিত আনসার সদস্যরা প্রবেশে বাধা দেয়। এ সময় সারোয়ার সবুজ সাংবাদিক পরিচয় দিলে আনসার সদস্য জানায়, যে নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হান অফিসে সাংবাদিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন স্টাফ জানান আপনারা নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে লেখালেখির কারণে নির্বাহী প্রকৌশলী আমাদেরকে সাংবাদিকদের ঢুকতে নিষেধ ও কোন কাজ না করার নির্দেশ দিয়েছেন।

উপজেলা সদর ডাইংপাড়া সদরে বিএনপি অফিসের পাশে এক ব্যবসায়ীর দোকানে বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশিত হলে ক্ষিপ্ত হয়ে সাংবাদিকদের উপর এই নিষেধাজ্ঞা দেন তিনি।

এদিকে গোদাগাড়ী পৌর এলাকার বিকাশ চন্দ্র সিংহ তার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য আবেদন করে। সরকারী জায়গায় দোকান ঘরে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার নিয়ম না থাকার অজুহাত দেখিয়ে ২০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করে। এই নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনওর)কাছে অভিযোগ করেন বিকাশ চন্দ্র সিংহ।

ইউএনও সঞ্জয় কুমার মহন্ত বলেন, বিকাশ চন্দ্র সিংহকে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে অনুরোধ জানিয়ে নির্বাহী প্রকৌশলীকে চিঠি দেয়া হয়েছে। গোদাগাড়ী এলাকার ভগমন্তপুর গ্রামের স্কুল শিক্ষক তৈয়বুর রহমান তার বিদ্যুৎ লাইনটি নষ্ট হয়ে গেলে নেসকোর অফিসে যায়। বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন তার কাছে ২ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করলে নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে অভিযোগ জানায়। কোন ব্যবস্থা গ্রহন না করে গালিগালাজ করে শিক্ষক তৈয়বুর রহমানকে অফিস থেকে বের করে দেয়। বিদ্যুৎ গ্রাহকরা অভিযোগ করেন গোদাগাড়ীতে নির্বাহী প্রকৌশলী হিসাবে আবু রায়হান যোগদানের পর থেকেই অফিসে অনিয়ম ও দুনীর্তি বেড়ে গেছে। এতে করে বিদ্যুৎ গ্রাহকরা ব্যাপক হয়রানীর শিকার হচ্ছে।

গোদাগাড়ী পৌরসভার প্যানেল মেয়র শহিদুল ইসলাম বলেন, ঘুষ ছাড়া সেবা পাওয়া যাচ্ছে না। নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হানের অনিয়ম ও দুনীর্তির অভিযোগ নেসকোর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে নেসকোর নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি সাংবাদিকদের ফোন ধরেনি। তবে নেসকোর বিতরণ অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ বলেন, সাংবাদিকদের প্রবেশে নির্বাহী প্রকৌশলী নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে না বিষয়টি দেখছি।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি