ঢাকা ০৭:৩৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আমরা পিছিয়ে থাকতে চাই না, আমারাও এগিয়ে যেতে চায়: হিজড়া জনগোষ্ঠী

খ্রীষ্টফার জয়
  • আপডেট সময় : ০৪:৩০:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ২৫ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক :


‘ছোট বেলায় আমরা পরিবার পরিজন থেকে বিতারিত হয়। না আছে ঘরবাড়ি, না আছে আত্মীয়-স্বজন। কেউ আমাদের মেনে নিতে পারে না । সমাজের বহু লাঞ্ছনা-গঞ্জনা সহ্য করে বেচে আছি । এই জায়গা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য আমাদের কর্ম দরকার, আমাদের বাসস্থানের জন্য জায়গা দরকার। আমরা পিছিয়ে থাকতে চাই না, আমারাও এগিয়ে যেতে চায় সবার সাথে’ কথাগুলো এভাবেই বলছিলেন তৃতীয় লিঙ্গের জয়িতা মোহনা।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে নগরীর নিউমার্কেটে এক রেস্তোরাঁয় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি। মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের পৃষ্ঠপোষকতা ও সুস্থ জীবন এর সহযোগিতায় বেসরকারি উন্নয়ন সংগঠন দিনের আলো হিজড়া সংঘ এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

সভায় দিনের আলো হিজড়া সংঘের সভাপতি জয়িতা মোহনা মুহিন বলেন, আমাদের অনেক সদস্যই এরই মধ্যে উদ্যোক্তা হয়ে উঠছেন। অনেকে হয়েছেন শিক্ষিত। তারা আর নেতিবাচক কাজে থাকতে চান না। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নানা ধরনের কাজের মানুষের দরকার হয়, সেখানে চাকরি দিলে তাদের আর রাস্তাঘাট, বাসাবাড়ি, দোকানপাট, বিয়ে বাড়িসহ যেখানে সেখানে টাকা চাওয়া লাগবে না। নিজেরা উপার্জন করতে পারবে ।

এসময় তিনি আক্ষেপ জানিয়ে বলেন, তারা রাজশাহী শহরে থাকার মতো বাসস্থান পাচ্ছেন না। ভাড়ার বিনিময়ে বাসা পেতেও নানা ধরনের ভোগান্তি এবং হয়রানির শিকার হতে হয় । সমাজের মানুষের দৃষ্টিভঙ্গির কারণে সবাই তাদেরকে বাসা ভাড়া দিতে চান না। আবার কেউ ভাড়া দিলেও তাদেরকে নির্ধারিত ভাড়ার থেকে বেশি ভাড়া দিতে হয়।

দিনের আলো হিজড়া সংঘের সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর সুলতানা আহমেদ সাগরিকা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন, জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়েছেন। তিনি বিভিন্ন জায়গায় বাসস্থানের জন্য ঘর দিয়েছেন। এবার আমরা রাজশাহীতে আমাদের জনগোষ্ঠীর জন্য কর্মসংস্থান ও বাসস্থান চাই ।

মতবিনিময় সভায় দিনের আলো হিজড়া সংঘের উপদেষ্টা শরীফ সুমন বলেন, একজন মানুষ হিসেবে ‘লিঙ্গ পরিচয়’ তার স্বাভাবিক জীবনযাপনের অধিকার কোনোভাবেই কেড়ে নিতে পারে না। তারা আজ টাকা দিয়েই বাসা ভাড়া পাচ্ছেন না, এটা কোনো কথা হতে পারে? তাই এই বিষয়গুলো নিয়ে আরও কাজ করতে হবে। তারা গণমাধ্যমের সহযোগিতায় এক সময় মূল স্রোতধারায় ফিরবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী এডিটরস ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব অপু, দিনের আলো হিজড়া সংঘের কোষাধ্যক্ষ মিস জুলি, হিজড়া সংঘের প্রোগ্রাম অফিসার রায়হানুল হক, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন প্রকল্পের প্রোগ্রাম সমন্বয়কারী মৌসুমী খাতুন।


প্রসঙ্গনিউজ২৪/জে.সি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

আমরা পিছিয়ে থাকতে চাই না, আমারাও এগিয়ে যেতে চায়: হিজড়া জনগোষ্ঠী

আপডেট সময় : ০৪:৩০:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক :


‘ছোট বেলায় আমরা পরিবার পরিজন থেকে বিতারিত হয়। না আছে ঘরবাড়ি, না আছে আত্মীয়-স্বজন। কেউ আমাদের মেনে নিতে পারে না । সমাজের বহু লাঞ্ছনা-গঞ্জনা সহ্য করে বেচে আছি । এই জায়গা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য আমাদের কর্ম দরকার, আমাদের বাসস্থানের জন্য জায়গা দরকার। আমরা পিছিয়ে থাকতে চাই না, আমারাও এগিয়ে যেতে চায় সবার সাথে’ কথাগুলো এভাবেই বলছিলেন তৃতীয় লিঙ্গের জয়িতা মোহনা।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে নগরীর নিউমার্কেটে এক রেস্তোরাঁয় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি। মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের পৃষ্ঠপোষকতা ও সুস্থ জীবন এর সহযোগিতায় বেসরকারি উন্নয়ন সংগঠন দিনের আলো হিজড়া সংঘ এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

সভায় দিনের আলো হিজড়া সংঘের সভাপতি জয়িতা মোহনা মুহিন বলেন, আমাদের অনেক সদস্যই এরই মধ্যে উদ্যোক্তা হয়ে উঠছেন। অনেকে হয়েছেন শিক্ষিত। তারা আর নেতিবাচক কাজে থাকতে চান না। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নানা ধরনের কাজের মানুষের দরকার হয়, সেখানে চাকরি দিলে তাদের আর রাস্তাঘাট, বাসাবাড়ি, দোকানপাট, বিয়ে বাড়িসহ যেখানে সেখানে টাকা চাওয়া লাগবে না। নিজেরা উপার্জন করতে পারবে ।

এসময় তিনি আক্ষেপ জানিয়ে বলেন, তারা রাজশাহী শহরে থাকার মতো বাসস্থান পাচ্ছেন না। ভাড়ার বিনিময়ে বাসা পেতেও নানা ধরনের ভোগান্তি এবং হয়রানির শিকার হতে হয় । সমাজের মানুষের দৃষ্টিভঙ্গির কারণে সবাই তাদেরকে বাসা ভাড়া দিতে চান না। আবার কেউ ভাড়া দিলেও তাদেরকে নির্ধারিত ভাড়ার থেকে বেশি ভাড়া দিতে হয়।

দিনের আলো হিজড়া সংঘের সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর সুলতানা আহমেদ সাগরিকা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন, জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়েছেন। তিনি বিভিন্ন জায়গায় বাসস্থানের জন্য ঘর দিয়েছেন। এবার আমরা রাজশাহীতে আমাদের জনগোষ্ঠীর জন্য কর্মসংস্থান ও বাসস্থান চাই ।

মতবিনিময় সভায় দিনের আলো হিজড়া সংঘের উপদেষ্টা শরীফ সুমন বলেন, একজন মানুষ হিসেবে ‘লিঙ্গ পরিচয়’ তার স্বাভাবিক জীবনযাপনের অধিকার কোনোভাবেই কেড়ে নিতে পারে না। তারা আজ টাকা দিয়েই বাসা ভাড়া পাচ্ছেন না, এটা কোনো কথা হতে পারে? তাই এই বিষয়গুলো নিয়ে আরও কাজ করতে হবে। তারা গণমাধ্যমের সহযোগিতায় এক সময় মূল স্রোতধারায় ফিরবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী এডিটরস ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব অপু, দিনের আলো হিজড়া সংঘের কোষাধ্যক্ষ মিস জুলি, হিজড়া সংঘের প্রোগ্রাম অফিসার রায়হানুল হক, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন প্রকল্পের প্রোগ্রাম সমন্বয়কারী মৌসুমী খাতুন।


প্রসঙ্গনিউজ২৪/জে.সি