ঢাকা ০৮:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তানোরে প্রস্তাবিত মুক্তিযোদ্ধা যাদু ঘরের জায়গা দখলের অভিযোগ

সারোয়ার হোসেন
  • আপডেট সময় : ১০:২৪:২৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুলাই ২০২৩ ৪৬ বার পড়া হয়েছে

তানোর প্রতিনিধি:


রাজশাহীর তানোর উপজেলার কামারগাঁ বাজারে প্রস্তাবিত মুক্তিযোদ্ধা যাদু ঘরের জায়গা দখলের অভিযোগ উঠেছে কতিপয় যুবলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে। চলতি মাসের (১৪জুলাই) শুক্রবার সকাল থেকে জায়গা দখল নিতে ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা রবিউলের নেতৃত্ব ৬/৭ জন যুবক বাঁশ পুতে জায়গা দখল করছেন।

এদিকে ওই জায়গার উপর সার ব্যবসায়ী বিকাশ মামলা করেছেন। এতে করে দখলদার ও মামলার বাদি, আসামী এবং স্থানীয়দের মাঝে ছড়িয়ে পড়েছে চরম উত্তেজনা। ফলে সবকিছু অপসারন করে মুক্তিযোদ্ধা যাদু ঘর করার দাবি দেশের সূর্য সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কামারগাঁ বাজার মসজিদের দক্ষিণে বাঁশের খুটি পুতছেন রবিউলের নেতৃত্বে আফজালসহ কয়েক যুবক কাজ করছেন। ৬/৮ টির মত বাঁশের খুটি পুতে উপরেও বাঁশ দিয়ে ঘিরছেন। সেখানে ছিলেন ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি রবিউল, তিনি বলেন, জায়গাটি নিয়ে সার ব্যবসায়ী বিকাশ মামলা করেছে এবং আমি, মেম্বার ইউপি যুবলীগ সভাপতি তোফায়েল, আ” লীগের ইউপি সম্পাদক মিন্টুসহ অনেককে আসামী করেছে।

বিকাশ প্রথম দিকে ফুলের গাছ লাগিয়ে ও নানা কৌশলে জায়গাটি দখল করতে মরিয়া হয়ে পড়েছেন। এজন্য আমরা জায়গাটিি ঘেরা শুরু করেছি। মামলা করবে আমাদের নামে, আবার জায়গাও নিবে এটা হতে পারে না। সরকার নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা যাদু ঘর নির্মান করলে আমরা সাদুবাদ জানাব। কারন আমরাও চাই এখানে যাদু ঘর হোক। কিন্তু বিকাশ এজায়গার উপর কিভাবে মামলা করে এবং আমরা কেন আসামী হব এমন প্রশ্ন তাদের।

ওই ওয়ার্ডের মেম্বার ও ইউপি যুবলীগ সভাপতি তোফায়েল বলেন, বিকাশ জায়গাটি দখলে নিতে নানান ভাবে পরিকল্পনা করছে। সে যেন জায়গাটি দখল করতে না পারেন এজন্য রবিউলসহ কয়েকজন নামমাত্র বাঁশের খুটি পুতেছেন।

সার ব্যবসায়ী বিকাশ জানান, বিগত ১৭ বছর ধরে সরকারকে খাজনা দিয়ে আসছি। আর মসজিদ সংলগ্ন জায়গায় কিভাবে যাদু ঘর হয়। আমি মামলা করেছি, পিবিআইকে তদন্ত দিয়েছে, আদালত যে রায় দিবে সেটাই মেনে নিব।

এর আগেও ওই জায়গায় বিকাশ গাছ রোপন করার সময় কামারগাঁ ভূমি অফিসের নায়েব কাওসার বাঁধা দেন। কিন্তু বাঁধা অপেক্ষা করে গাছ রোপন করেন বিকাশ বলেও অভিযোগ রয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকেই নায়েবকে মোবাইল করা হলে রিসিভ করেননি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিল্লাল হোসেন বলেন, জায়গা দখলের খবর জানতে পেরে পুলিশ পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করা হয়েছে।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

তানোরে প্রস্তাবিত মুক্তিযোদ্ধা যাদু ঘরের জায়গা দখলের অভিযোগ

আপডেট সময় : ১০:২৪:২৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুলাই ২০২৩

তানোর প্রতিনিধি:


রাজশাহীর তানোর উপজেলার কামারগাঁ বাজারে প্রস্তাবিত মুক্তিযোদ্ধা যাদু ঘরের জায়গা দখলের অভিযোগ উঠেছে কতিপয় যুবলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে। চলতি মাসের (১৪জুলাই) শুক্রবার সকাল থেকে জায়গা দখল নিতে ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা রবিউলের নেতৃত্ব ৬/৭ জন যুবক বাঁশ পুতে জায়গা দখল করছেন।

এদিকে ওই জায়গার উপর সার ব্যবসায়ী বিকাশ মামলা করেছেন। এতে করে দখলদার ও মামলার বাদি, আসামী এবং স্থানীয়দের মাঝে ছড়িয়ে পড়েছে চরম উত্তেজনা। ফলে সবকিছু অপসারন করে মুক্তিযোদ্ধা যাদু ঘর করার দাবি দেশের সূর্য সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কামারগাঁ বাজার মসজিদের দক্ষিণে বাঁশের খুটি পুতছেন রবিউলের নেতৃত্বে আফজালসহ কয়েক যুবক কাজ করছেন। ৬/৮ টির মত বাঁশের খুটি পুতে উপরেও বাঁশ দিয়ে ঘিরছেন। সেখানে ছিলেন ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি রবিউল, তিনি বলেন, জায়গাটি নিয়ে সার ব্যবসায়ী বিকাশ মামলা করেছে এবং আমি, মেম্বার ইউপি যুবলীগ সভাপতি তোফায়েল, আ” লীগের ইউপি সম্পাদক মিন্টুসহ অনেককে আসামী করেছে।

বিকাশ প্রথম দিকে ফুলের গাছ লাগিয়ে ও নানা কৌশলে জায়গাটি দখল করতে মরিয়া হয়ে পড়েছেন। এজন্য আমরা জায়গাটিি ঘেরা শুরু করেছি। মামলা করবে আমাদের নামে, আবার জায়গাও নিবে এটা হতে পারে না। সরকার নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা যাদু ঘর নির্মান করলে আমরা সাদুবাদ জানাব। কারন আমরাও চাই এখানে যাদু ঘর হোক। কিন্তু বিকাশ এজায়গার উপর কিভাবে মামলা করে এবং আমরা কেন আসামী হব এমন প্রশ্ন তাদের।

ওই ওয়ার্ডের মেম্বার ও ইউপি যুবলীগ সভাপতি তোফায়েল বলেন, বিকাশ জায়গাটি দখলে নিতে নানান ভাবে পরিকল্পনা করছে। সে যেন জায়গাটি দখল করতে না পারেন এজন্য রবিউলসহ কয়েকজন নামমাত্র বাঁশের খুটি পুতেছেন।

সার ব্যবসায়ী বিকাশ জানান, বিগত ১৭ বছর ধরে সরকারকে খাজনা দিয়ে আসছি। আর মসজিদ সংলগ্ন জায়গায় কিভাবে যাদু ঘর হয়। আমি মামলা করেছি, পিবিআইকে তদন্ত দিয়েছে, আদালত যে রায় দিবে সেটাই মেনে নিব।

এর আগেও ওই জায়গায় বিকাশ গাছ রোপন করার সময় কামারগাঁ ভূমি অফিসের নায়েব কাওসার বাঁধা দেন। কিন্তু বাঁধা অপেক্ষা করে গাছ রোপন করেন বিকাশ বলেও অভিযোগ রয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকেই নায়েবকে মোবাইল করা হলে রিসিভ করেননি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিল্লাল হোসেন বলেন, জায়গা দখলের খবর জানতে পেরে পুলিশ পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করা হয়েছে।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি