ঢাকা ০৬:০১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীতে শত্রুতার জেরে রাতের অন্ধকারে ঘরে আগুন

খ্রীষ্টফার জয়
  • আপডেট সময় : ০৫:৩৯:০৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩ ৬৩ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহীতে শত্রুতার জেরে রাতের অন্ধকারে ঘরে আগুন

নিজস্ব প্রতিবেদক:


জমি কেনা বেচা নিয়ে শত্রুতার জেরে রাতের অন্ধকারে ঘরে আগুন বাড়ি বিক্রিকে কেন্দ্র করে শত্রুতার জেরে রাতের অন্ধকারে মো: নুরুল ইসলাম ভুট্টুর ঘরে আগুন দিয়েছে দুবৃত্বরা। ঘটনাকি ঘটে গতকাল ২৭ এপ্রিল রাত্রি ৯টা ৫ মিনিটে রাজশাহী নগরীর ৩০ নং ওয়ার্ডে চৌদ্দপায় এলাকায় ।

স্থানীয়রা বলছে গতকাল যখন সবাই নিজ নিজ কাজে ব্যস্ত তখন রাতের অন্ধকারে কে বা করা ভু্ট্টুর বাড়ির পেছনে পেট্ট্রল ও কেরোসিন জ্বালিয়ে আগুন দিয়েছে । আগুন লাগার পর কিছু মানুষ দেখতে পায় (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) যে ঘরের পেছনে আগুন লেগেছে। তাৎক্ষনিক তারা গেয়ে বালি পানি দিয়ে আগুন নেভায়।

সেই সময় স্থানীয় এক ব্যক্তি ফায়ার ব্রিগেডে কল দিয়ে তাদের আগুন লাগার তথ্য দেন। পরবর্তীতে তারা এসে দেখেন কোন ধরণের আগুন নিভে গেছে। তবে ঘরের ভিতরে কোন ধরনের আগুন লাগান কোন কিছু আছে কিনা সেটি দেখার জন্য তারা বাড়ির ও স্থানীয়দের অনুমতি নিয়ে তালা দেয়া গেটের তালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে আগুন লাগান বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখেন ও এতে কোন ধরণের বিপদের আশঙ্কা তারা দেখেন নাই।

গণমাধ্যমকর্মীরা বাড়ির মালিক মো: নুরুল ইসলাম ভুট্টুর কাছে আগুন লাগার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি আল মামুন নামের এক জনের কাছে জমি বিক্রি করায় ১৩ লাখ টাকা বায়না নিয়েছি এবং তিন মাস টাইম দিয়েছি। সে ছয় মাসেও আমার সঙ্গে বসেনি এবং দেখাও করেনি, ৬ মাস পরে আমি অন্য জনের কাছে আমার বাড়ি বিক্রি করে দেই এবং মামুন নামের ব্যক্তির কাছ থেকে ১৩ লাখ টাকা বায়না নিয়েছি, সেটা ফেরত দেওয়ার জন্য তাকে ডাকা হলে সে ভুক্তভোগীর কাছে আসেও নাই আবার সাক্ষাতও করে না।

আবার বাড়ির মালিককে বিভিন্ন সময় প্রাণনাশর হুমকি দিচ্ছে ও একক সময় এনএসআই, সাংবাদিক, গোয়েন্দা সহ নানা নামে পরিচয় দিয়ে হয়রানি করছে ও হুমকি ধুমকি দিচ্ছে। বাড়ির মালিক আরো বলেন বায়না করা টাকার চেক ও স্ট্যাম্প মামুন নিয়ে রেখেছে ও আমার নামে কোর্টে ৩৫ লক্ষ টাকার মামলাও করেছে। কোর্টে কেস চলমান রয়েছে।

কেস চলা অবস্থাতেও মামুন নামের ব্যক্তি ভুক্তভোগী মোঃ নূরুল ইসলাম ভু্ট্টকে মুঠোফোনে এবং লোকজন দেখিয়ে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি ও অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। তাই আল মামুন (৪৫) এবং রানী খাতুন (৩৫) এই দুইজনকে সন্দেহ করে তার নিরাপত্তার কথা ভেবে নগরীর মতিহার থানায় লিখিত অভিযোগ করে।

এ বিষয়ে মামুনের মুঠোফোনে কল করলে মামুন বলেন, মোঃ নূরুল ইসলাম ভু্ট্ট ভুক্তভোগী হয়ে আমাকে ফাসানোর চেষ্টা করছে। আগুন লাগার বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। সেদিন আমি কাশিয়াডাঙ্গা মোড়ে ছিলাম ব্যক্তিগত কাজে। তবে তিনি বলেন রজব কমিশনাররে সালা মনো ভাই তাকে জানান যে ভুট্টুর বাড়িতে আগুন লেগেছে।এটা সর্ম্পুন্ন মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

রাজশাহীতে শত্রুতার জেরে রাতের অন্ধকারে ঘরে আগুন

আপডেট সময় : ০৫:৩৯:০৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক:


জমি কেনা বেচা নিয়ে শত্রুতার জেরে রাতের অন্ধকারে ঘরে আগুন বাড়ি বিক্রিকে কেন্দ্র করে শত্রুতার জেরে রাতের অন্ধকারে মো: নুরুল ইসলাম ভুট্টুর ঘরে আগুন দিয়েছে দুবৃত্বরা। ঘটনাকি ঘটে গতকাল ২৭ এপ্রিল রাত্রি ৯টা ৫ মিনিটে রাজশাহী নগরীর ৩০ নং ওয়ার্ডে চৌদ্দপায় এলাকায় ।

স্থানীয়রা বলছে গতকাল যখন সবাই নিজ নিজ কাজে ব্যস্ত তখন রাতের অন্ধকারে কে বা করা ভু্ট্টুর বাড়ির পেছনে পেট্ট্রল ও কেরোসিন জ্বালিয়ে আগুন দিয়েছে । আগুন লাগার পর কিছু মানুষ দেখতে পায় (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) যে ঘরের পেছনে আগুন লেগেছে। তাৎক্ষনিক তারা গেয়ে বালি পানি দিয়ে আগুন নেভায়।

সেই সময় স্থানীয় এক ব্যক্তি ফায়ার ব্রিগেডে কল দিয়ে তাদের আগুন লাগার তথ্য দেন। পরবর্তীতে তারা এসে দেখেন কোন ধরণের আগুন নিভে গেছে। তবে ঘরের ভিতরে কোন ধরনের আগুন লাগান কোন কিছু আছে কিনা সেটি দেখার জন্য তারা বাড়ির ও স্থানীয়দের অনুমতি নিয়ে তালা দেয়া গেটের তালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে আগুন লাগান বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখেন ও এতে কোন ধরণের বিপদের আশঙ্কা তারা দেখেন নাই।

গণমাধ্যমকর্মীরা বাড়ির মালিক মো: নুরুল ইসলাম ভুট্টুর কাছে আগুন লাগার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি আল মামুন নামের এক জনের কাছে জমি বিক্রি করায় ১৩ লাখ টাকা বায়না নিয়েছি এবং তিন মাস টাইম দিয়েছি। সে ছয় মাসেও আমার সঙ্গে বসেনি এবং দেখাও করেনি, ৬ মাস পরে আমি অন্য জনের কাছে আমার বাড়ি বিক্রি করে দেই এবং মামুন নামের ব্যক্তির কাছ থেকে ১৩ লাখ টাকা বায়না নিয়েছি, সেটা ফেরত দেওয়ার জন্য তাকে ডাকা হলে সে ভুক্তভোগীর কাছে আসেও নাই আবার সাক্ষাতও করে না।

আবার বাড়ির মালিককে বিভিন্ন সময় প্রাণনাশর হুমকি দিচ্ছে ও একক সময় এনএসআই, সাংবাদিক, গোয়েন্দা সহ নানা নামে পরিচয় দিয়ে হয়রানি করছে ও হুমকি ধুমকি দিচ্ছে। বাড়ির মালিক আরো বলেন বায়না করা টাকার চেক ও স্ট্যাম্প মামুন নিয়ে রেখেছে ও আমার নামে কোর্টে ৩৫ লক্ষ টাকার মামলাও করেছে। কোর্টে কেস চলমান রয়েছে।

কেস চলা অবস্থাতেও মামুন নামের ব্যক্তি ভুক্তভোগী মোঃ নূরুল ইসলাম ভু্ট্টকে মুঠোফোনে এবং লোকজন দেখিয়ে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি ও অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। তাই আল মামুন (৪৫) এবং রানী খাতুন (৩৫) এই দুইজনকে সন্দেহ করে তার নিরাপত্তার কথা ভেবে নগরীর মতিহার থানায় লিখিত অভিযোগ করে।

এ বিষয়ে মামুনের মুঠোফোনে কল করলে মামুন বলেন, মোঃ নূরুল ইসলাম ভু্ট্ট ভুক্তভোগী হয়ে আমাকে ফাসানোর চেষ্টা করছে। আগুন লাগার বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। সেদিন আমি কাশিয়াডাঙ্গা মোড়ে ছিলাম ব্যক্তিগত কাজে। তবে তিনি বলেন রজব কমিশনাররে সালা মনো ভাই তাকে জানান যে ভুট্টুর বাড়িতে আগুন লেগেছে।এটা সর্ম্পুন্ন মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন।


প্রসঙ্গনিউজবিডি/জে.সি