ঢাকা ০৪:৪৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবিব স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ, ২০২৩ সালের বিএসসি-ইন-নার্সিং (বেসিক) ১ম, ২য়, ৩য় ও ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষা আগামী ৭ সেপ্টেম্বর-২০২৪ তারিখ থেকে শুরু হবে

কাফনের কাপড় জড়িয়ে আমরণ অনশন, অবশেষে দাবি আদায়

খ্রীষ্টফার জয়
  • আপডেট সময় : ০৪:৫৪:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪ ১৭ বার পড়া হয়েছে

আমরণ অনশন

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (রামেবি) নার্সিং অনুষদে সৃষ্ট ভয়াবহ সেশনজট নিরসনের দাবিতে ‘কাফনের কাপড়’ পরে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষার্থীরা। বুধবার (৩ জুলাই) দুপুর ১২টা থেকে রামেবির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ দপ্তরের সামনে তারা এ কর্মসূচি শুরু করেন। এসময় বৃষ্টি শুরু হলেও সেখানে অবস্থান নিয়ে দাবি আদায়ে নানা স্লোগান দিতে থাকেন তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রামেবি ও পরীক্ষা গ্রহণ কমিটির উদাসীনতার কারণে ১৮টি নার্সিং কলেজে তৈরি হয়েছে ভয়াবহ সেশনজট। কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে চললে ২০১৯-২০ সেশনের বিএসসি-ইন-নার্সিং কোর্সের শিক্ষার্থীরা চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে রেজিস্টার্ড নার্স পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারতেন। কিন্তু সেশনজটের কারণে সেটি আর হচ্ছে না। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের চূড়ান্ত পরীক্ষা গ্রহণ করে ফলাফল প্রকাশ করলেও ৬ মাস পিছিয়ে থেকে তাদের কোর্স সম্পন্ন হবে। অথচ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নার্সিং অনুষদে সেশনজট নিরসন হয়ে ইতোমধ্যে পরীক্ষাও সম্পন্ন হয়েছে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘স্যরেরা শুধু করোনার দোহাই দেন। কিন্তু করোনা তো সারাদেশেই ছিল। ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেটে পরীক্ষা নেয়া গেলে রামেবিতে কেন নেয়া যাবে না? আমরা যখন আসি, মৌখিকভাবে আশ্বস্ত করা হয়, কিন্তু বাস্তবে সেটির প্রতিফল হয় না। আমরা ওয়েবসাইটে পরীক্ষার রুটিন দেখতে চাই এবং সেপ্টেম্বর মাসের ভেতরে পরীক্ষা গ্রহণ করে ফলাফল প্রকাশ করতে হবে।’

এ দিনের অনশন কর্মসূচিতে রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর ও লালমনিরহাট সরকারি নার্সিং কলেজসহ রামেবি অধিভুক্ত অন্যান্য বেসরকারি নার্সিং কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন।

তবে অনশনের খবর পেয়ে প্রথমে রামেবির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবিব এবং পরবর্তীতে উপাচার্য প্রফেসর ডা. মো. মোস্তাক হোসেন শিক্ষার্থীদের কাছে আসেন। এ সময় তারা শিক্ষার্থীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবিব বলেন, ‘আমি বেঁচে থাকলে সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই পরীক্ষা গ্রহণ ও ফলাফল প্রকাশ করবো।’ এ সময় উপাচার্য প্রফেসর ডা. মোস্তাক হোসেন বলেন, ‘যাতে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পরীক্ষা নেয়া ও রেজাল্ট দেয়া যায়, আমরা সেই ব্যবস্থা করব।’

অবশ্য এর পরপরই রামেবির ওয়েবসাইটে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবিব স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ‘২০২৩ সালের বিএসসি-ইন-নার্সিং (বেসিক) ১ম, ২য়, ৩য় ও ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষা আগামী ৭ সেপ্টেম্বর-২০২৪ তারিখ থেকে শুরু হবে। পরীক্ষা গ্রহণ শেষে সম্ভাব্য অক্টোবর-২০২৪ এর ১ম সপ্তাহের মধ্যে ফলাফল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রকাশ করা হবে। ফরম পূরণের সময়সূচি পূর্ণাঙ্গ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে যথাসময়ে প্রকাশ করা হবে।’


প্রসঙ্গনিউজ২৪/জে.সি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবিব স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ, ২০২৩ সালের বিএসসি-ইন-নার্সিং (বেসিক) ১ম, ২য়, ৩য় ও ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষা আগামী ৭ সেপ্টেম্বর-২০২৪ তারিখ থেকে শুরু হবে

কাফনের কাপড় জড়িয়ে আমরণ অনশন, অবশেষে দাবি আদায়

আপডেট সময় : ০৪:৫৪:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (রামেবি) নার্সিং অনুষদে সৃষ্ট ভয়াবহ সেশনজট নিরসনের দাবিতে ‘কাফনের কাপড়’ পরে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষার্থীরা। বুধবার (৩ জুলাই) দুপুর ১২টা থেকে রামেবির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ দপ্তরের সামনে তারা এ কর্মসূচি শুরু করেন। এসময় বৃষ্টি শুরু হলেও সেখানে অবস্থান নিয়ে দাবি আদায়ে নানা স্লোগান দিতে থাকেন তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রামেবি ও পরীক্ষা গ্রহণ কমিটির উদাসীনতার কারণে ১৮টি নার্সিং কলেজে তৈরি হয়েছে ভয়াবহ সেশনজট। কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে চললে ২০১৯-২০ সেশনের বিএসসি-ইন-নার্সিং কোর্সের শিক্ষার্থীরা চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে রেজিস্টার্ড নার্স পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারতেন। কিন্তু সেশনজটের কারণে সেটি আর হচ্ছে না। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের চূড়ান্ত পরীক্ষা গ্রহণ করে ফলাফল প্রকাশ করলেও ৬ মাস পিছিয়ে থেকে তাদের কোর্স সম্পন্ন হবে। অথচ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নার্সিং অনুষদে সেশনজট নিরসন হয়ে ইতোমধ্যে পরীক্ষাও সম্পন্ন হয়েছে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘স্যরেরা শুধু করোনার দোহাই দেন। কিন্তু করোনা তো সারাদেশেই ছিল। ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেটে পরীক্ষা নেয়া গেলে রামেবিতে কেন নেয়া যাবে না? আমরা যখন আসি, মৌখিকভাবে আশ্বস্ত করা হয়, কিন্তু বাস্তবে সেটির প্রতিফল হয় না। আমরা ওয়েবসাইটে পরীক্ষার রুটিন দেখতে চাই এবং সেপ্টেম্বর মাসের ভেতরে পরীক্ষা গ্রহণ করে ফলাফল প্রকাশ করতে হবে।’

এ দিনের অনশন কর্মসূচিতে রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর ও লালমনিরহাট সরকারি নার্সিং কলেজসহ রামেবি অধিভুক্ত অন্যান্য বেসরকারি নার্সিং কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন।

তবে অনশনের খবর পেয়ে প্রথমে রামেবির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবিব এবং পরবর্তীতে উপাচার্য প্রফেসর ডা. মো. মোস্তাক হোসেন শিক্ষার্থীদের কাছে আসেন। এ সময় তারা শিক্ষার্থীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবিব বলেন, ‘আমি বেঁচে থাকলে সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই পরীক্ষা গ্রহণ ও ফলাফল প্রকাশ করবো।’ এ সময় উপাচার্য প্রফেসর ডা. মোস্তাক হোসেন বলেন, ‘যাতে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পরীক্ষা নেয়া ও রেজাল্ট দেয়া যায়, আমরা সেই ব্যবস্থা করব।’

অবশ্য এর পরপরই রামেবির ওয়েবসাইটে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবিব স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ‘২০২৩ সালের বিএসসি-ইন-নার্সিং (বেসিক) ১ম, ২য়, ৩য় ও ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষা আগামী ৭ সেপ্টেম্বর-২০২৪ তারিখ থেকে শুরু হবে। পরীক্ষা গ্রহণ শেষে সম্ভাব্য অক্টোবর-২০২৪ এর ১ম সপ্তাহের মধ্যে ফলাফল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রকাশ করা হবে। ফরম পূরণের সময়সূচি পূর্ণাঙ্গ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে যথাসময়ে প্রকাশ করা হবে।’


প্রসঙ্গনিউজ২৪/জে.সি