সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৪৮ পূর্বাহ্ন

পর্তুগালের বিশ্বকাপ ছাপিয়ে আলোচনায় রোনালদো আর ম্যানইউ

রিপোর্টারের নাম
  • সময় : বুধবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২২
  • ১০ দেখেছেন

প্রসঙ্গ ডেস্ক : পর্তুগাল বনাম ঘানার ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলন। পতুর্গালের কোচ ফার্নান্দো সান্তোসের সঙ্গে এলেন ব্রুনো ফার্নান্দেজকে নিয়ে। কোচের আগে খেলোয়াড়কে প্রশ্ন করে শুরু প্রেস কনফারেন্স।

পর্তুগালের ম্যানইউয়ের ফুটবলার ব্রুনো ফার্নান্দেজকে শুরুতেই তার সদ্য সাবেক ক্লাব সতীর্থ ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে নিয়ে প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়েছে। রোনালদোর সঙ্গে ম্যানইউয়ের ঝামেলা চলছিল বেশ কিছু দিন ধরেই। ঘানার বিপক্ষে ম্যাচের ৪৮ ঘণ্টারও কম সময়ে আগে এই দুই পক্ষ সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করে। ক্লাব ও জাতীয় দলের সতীর্থ হয়েও রোনালদোর বিষয়টি জানতেন না ব্রুনো, ‘ক্লাব ছাড়ার সিদ্ধান্ত এককভাবে তার। আমার সঙ্গে এই বিষয়ে কোনো আলাপ হয়নি। তিনি স্বাধীনভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।’

পর্তুগালের প্রাণভোমরা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়ের ক্লাব নিয়ে ঝামেলা পতুর্গাল দলেও সংক্রমিত হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। এটি শুধু রোনালদোর সমস্যা হিসেবে আখ্যায়িত করে ব্রুনো বলেন, ‘এটা একান্ত তার (রোনালদোর) বিষয়। অন্য খেলোয়াড়রা খেলার প্রতি মনোযোগী। রোনালদো যথেষ্ট অভিজ্ঞ সে এই পরিস্থিতিতেও নিজেকে খেলার প্রতি মনোনিবেশ করতে পারবে।’

গতকালই রোনালদোর সঙ্গে ম্যানচেস্টারের বাঁধন ছিন্ন হয়েছে। সারা ফুটবল বিশ্বেই এটি বেশ বড় খবর। পর্তুগালের ক্যাম্পেও এ নিয়ে আলোচনা হওয়ারই কথা। তবে দলটির কোচ সান্তোস বলছেন, ‘আমাদের ক্যাম্পের পরিবেশ যথেষ্ট শান্ত এবং স্বাভাবিকই রয়েছে। গতকালও রোনালদোর সঙ্গে আলাপ হয়েছে। যদিও ম্যানইউ প্রসঙ্গে নয়। সেও বেশ হাসিখুশিই রয়েছে।’

বিশ্বকাপের সময় ক্লাব নিয়ে পর্তুগিজ ফুটবলারদের ঝামেলা নতুন কিছু নয়। ২০১৮ সালেও এ রকম ঘটনার অভিজ্ঞতা রয়েছে সান্তোসের, ‘রাশিয়া বিশ্বকাপের সময় ৬ ফুটবলার ক্লাব ছাড়া ছিল। একজন পেশাদার ফুটবলারের ক্লাব ছাড়া অবশ্যই একটা বাড়তি চ্যালেঞ্জ। সেই বিশ্বকাপেও সবার মনোযোগ জাতীয় দল নিয়েই ছিল। এবারও তাই থাকবে।’

সংবাদ সম্মেলনে কোচ ও খেলোয়াড়কে দশটির বেশি প্রশ্ন করা হয়েছে। দশটির মধ্যে ৭-৮টি প্রশ্নই রোনালদোর ম্যানইউ নিয়ে। পর্তুগিজ এবং ইংরেজ সাংবাদিকরা রোনালদোর বিষয়ে একাধিক প্রশ্ন করেছেন। ঘানার ম্যাচ নিয়ে জিজ্ঞেস করেছিলেন ঘানার দুই সাংবাদিক।

ঘানাকে যথেষ্ট সমীহ করে পর্তুগিজ কোচ বলেন, ‘আমরা সাম্প্রতিক সময়ে আফ্রিকান দলের বিপক্ষে খেলেছি। প্রীতি ম্যাচের ফলাফল বেশ ইতিবাচক। আমরা সেই দিকে না তাকিয়ে ঘানার দিকেই মনোযোগ দিচ্ছি। ঘানা দলটি অত্যন্ত ভারসাম্যপূর্ণ। বিশেষ করে তাদের দলে ৪-৫ জন খেলোয়াড় রয়েছেন যারা খুবই অভিজ্ঞ।’

ইউরোপ সেরা হলেও বিশ্বকাপ জেতার দৌড়ে রাখা হয় না পর্তুগিজদের। এ নিয়ে কোচের বক্তব্য, ‘অন্যদের মতো আমরাও বিশ্বকাপ জিততে চাই।’

ঘানা প্রসঙ্গ আসার পরও আবার ফিরতে হয়েছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ইস্যুতে। ম্যানইউ বিচ্ছেদের পর পতুর্গালের মনোযোগ কি ঘানার ম্যাচে পুরোটা থাকবে ? কোচ ও ব্রুনো দুই জনই একসুরে বলেন, ‘অবশ্যই আমরা সবাই কালকের ম্যাচ নিয়ে ভাবছি। আমাদের সঙ্গে রোনালদোও রয়েছেন।’

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার.....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর.....