মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
প্রাক্তন ছাত্রীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ উঠেছে সহকারী প্রক্টরের নেইমারকে ছাড়াই জয় ব্রাজিলের ‘বিএনপি উচ্ছৃঙ্খলতা করলে বরদাশত করা হবে না’- রাসিক মেয়র ছোট্ট স্বপ্নের গল্পপাঠের আসর ১১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতির পিতার মৃত্যুতে রাসিক মেয়রের শোক ঢাকা থেকে নৌকা নিয়ে বাঘায় পৌঁছে ফুলে ফুলে সিক্ত হলেন-পিন্টু গোদাগাড়ীর সুলতানগঞ্জ পোর্টে কাস্টমস কার্যক্রম চালুকরণ বিষয়ে মতবিনিময় রাজশাহী মহানগর ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদকের দাদীর মৃত্যুতে শোক শিবগঞ্জে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে শীতকালীন শাক-সবজির বীজ বিতরণ রাসিক মেয়রের সাথে প্যারা কমান্ডো ব্রিগেড কমান্ডারের সৌজন্য সাক্ষাৎ

দেশ অর্থনৈতিকভাবে খুবই বিপদগ্রস্ত: দুদু

রিপোর্টারের নাম
  • সময় : শনিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২২
  • ১০ দেখেছেন

প্রসঙ্গ ডেস্ক: বাংলাদেশ এখন তলাবিহীন ঝুড়িতে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু।

তিনি বলেছেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে খুবই বিপদগ্রস্ত। এমন কোনো জিনিস নেই, যার দাম তিনশ থেকে চারশ গুণ বাড়েনি। সবকিছু সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে চলে গেছে।

শনিবার (১৯ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয়তাবাদী সংগ্রাম দলের উদ্যোগে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জুবাইদা রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

দুদু বলেন, বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ করেছিল জিয়াউর রহমান ও খালেদা জিয়া। শিল্প, কৃষি, শিক্ষাসহ দেশের এমন কোনো ক্ষেত্র নেই যে দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও জিয়াউর রহমান উন্নয়নের ছোঁয়া দেননি। অথচ বর্তমানে দেশের অর্থনীতির অবস্থা এতটাই বিপর্যয় যে, ব্যাংকগুলোতে সাধারণ এলসি লাগানো হয়, সেই এলসি খোলার উদ্যোগ নেই। সরকারিভাবে প্রেস নোট জারি করে এই এলসি বন্ধ করে দিয়েছে।

তিনি বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে নৈরাজ্য সৃষ্টি হয়েছে। বিভিন্ন সংবাদপত্রে জানতে পেরেছি- প্রশ্নপত্রের জন্য কাগজ নেই, ব্ল্যাক বোর্ডে প্রশ্ন লিখে দিচ্ছে, আর ছাত্রদের সেই প্রশ্নের উত্তর বাড়ি থেকে লিখে নিয়ে আসতে বলছে। এ এক ভয়াবহ চিত্র। জিয়াউর রহমানের আমল থেকে প্রাইমারিতে শিক্ষার উপক্রম ফ্রি দেওয়া হতো। এবার কাগজের অভাবে সব বন্ধ হয়ে গেছে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বলেন, এমন কোনো নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য নেই যার দাম তিনশ থেকে চারশ গুণ বাড়েনি। এসবের দাম সরকার বাড়াচ্ছে। সিন্ডিকেট যেমন আছে, তেমনি সরকারের সিন্ডিকেটও এগুলোর দাম বাড়াচ্ছে। দেশের মানুষের জানমালের নিরাপত্তা নেই।

বিএনপির এ নেতা বলেন, বিএনপির বিভাগীয় ছয়টি সমাবেশ হয়েছে। আজ সিলেটে হচ্ছে। এ অবৈধ সরকার এসব সমাবেশে জনগণ যেন কম হয় তার জন্য বাস-লঞ্চসহ সবকিছু বন্ধ করে দিয়েছে। শুধু তাই নয় তথাকথিত ব্যারিকেড দিয়ে জনগণকে আটকানোর চেষ্টা করছে। তারপরেও তারা জনগণকে থামাতে পারেনি। সমাবেশগুলো জনসমুদ্র পরিণত হয়েছে। কোনো কোনো জায়গায় চারদিন ধরে সমাবেশ হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় সমাবেশ। এই সমাবেশে উত্তাল তরঙ্গের মতো জনসমুদ্র পরিণত হবে। জনগণকে কোনোভাবে আটকাতে পারবে না।

দুদু বলেন, আমরা মনে করি এই সরকারের বিরুদ্ধে জনগণকে রাস্তায় নেমে আসতে হবে। এছাড়া এই স্বৈরতন্ত্রের হাত থেকে বাঁচার কোনো পথ নেই। আমরা জনগণের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে এ সরকারকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করতে পারি।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি এম এইচ মনিরের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন জিনাফের সভাপতি মিয়া মো. আনোয়ার, সাবেক শাহবাগ থানা কৃষক দলের সহ-সভাপতি শাহজাহান মিয়া সম্রাট, কল্যাণ পার্টির সহ-সভাপতি সাইদুর রহমান তামান্না,সরোয়ার প্রমুখ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার.....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর.....