সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১০:৪৪ পূর্বাহ্ন

অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা সেলিনা আফরোজকে প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন

রিপোর্টারের নাম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২২
  • ১২ দেখেছেন

নিউজ ডেস্ক


সার, বীজ, কীটনাশক ব্যবসায়ীদের উপর অন্যায়ভাবে জুলুম ও হয়রানির প্রতিবাদে দিনাজপুরের কাহারোলের অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা সেলিনা আফরোজকে প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন ও ইউএনও বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে ব্যবসায়ীরা।

বৃহস্পতিবার দিনাজপুর কাহারোলের আমতলা মোড়ে রাসায়নিক সার, বীজ, কীটনাশক ডিলার ও খুচরা ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির আয়োজনে ঘন্টাব্যাপী এই মানববন্ধন পালন করেন স্থানীয় শত শত ব্যবসায়ীরা।

পরে মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল সহকারে তারা অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা সেলিনা আফরোজকে প্রত্যাহারসহ ৬ দফা দাবি সম্মিলিত একটি স্মারকলিপি কাহারোল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনিরুল হাসানের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা সেলিনা আফরোজ কাহারোলে বদলী হয়ে এসেই ঘুষ বাণিজ্য শুরু করেছেন, তিনি ব্যবসায়ীদের আলাদাভাবে তার সাথে যোগাযোগ করতে বলেন, ব্যবসায়ীরা দেখা না করায় ক্ষিপ্ত হয়ে নিজে এবং ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মাধ্যমে ভেজাল বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে অন্যায়ভাবে দোকানের মালামাল জব্দ এবং কোনোরূপ পরীক্ষা নিরীক্ষা ছাড়াই তা ধ্বংস করছে।

মানববন্ধন চলাকালে সংগঠনের সভাপতি আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীনের সভাপতিত্বে সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোহাম্মদ মোনায়েম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক পুলিং চন্দ্র রায়, সহ সাধারন সম্পাদক আব্দুল সালাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আনসারুল ইসলাম প্রমুখ।

 

এদিকে, অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা সেলিনা আফরোজ সাংবাদিকদের বলেন, ভোক্তা অধিকার সংক্রান্ত সরকারী নিয়মনীতি মেনেই অভিযান পরিচালনা এবং জব্দকৃত মালামাল ধ্বংস করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কাহারোল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু জাফর মোহাম্মদ সাদেক জানান, কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের এটা রুটিন ওর্য়ার্ক, মনিটরিং এর দায়িত্ব তাই আমার অফিসাররা বিভিন্ন সার ও বালাই নাশকের দোকানে নিয়ম মেনেই অভিযান চালায় এবং পন্য যাচাই বাছাইয়ের পর ভেজাল পাওয়া গেলে তা ধ্বংস করেন।

উল্লেখ্য, ৬ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে, আগামী ৭কর্ম দিবসের মধ্যে অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা সেলিনা আফরোজকে কাহারোল থেকে প্রত্যাহার, অযথা হয়রানিমূলক অভিযান বন্ধ করতে হবে, অভিযান চালানোর সময় আমাদের সমিতির প্রতিনিধিদের সঙ্গে রাখতে হবে, কোনো সার, কীটনাশক ধ্বংস করার আগে ল্যাবরেটরিতে রাসায়নিক পরীক্ষা করতে হবে নকল প্রমাণিত হলে তা ধ্বংস করা যেতে পারে অন্যথায় তা ফেরত দিতে হবে, সার ও কীটনাশক ডিলার ও ব্যবসায়ীর সঙ্গে খারাপ আচরণ করা যাবে না ও অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা সেলিনা আফরোজ কে সাত দিনের মধ্যে কাহারোল থেকে প্রত্যাহার না করা হলে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে বৃহত্তর আন্দোলনের এর ডাক দেওয়া হবে ।


প্রসঙ্গনিউজ/জে.সি

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার.....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর.....