শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:৪৫ অপরাহ্ন

যুদ্ধের কারণে বিশ্বের প্রায় সব দেশেই পণ্যমূল্য বেড়েছে

রিপোর্টারের নাম
  • সময় : বুধবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২২
  • ১৫ দেখেছেন

প্রসঙ্গ ডেস্ক : স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সাময়িক সময়ের জন্য দেশে কয়েক ঘণ্টা লোডশেডিং চলছে, কিন্তু এনিয়েই বিএনপি বিরাট রাজনীতি শুরু করেছে। শুধু বাংলাদেশ নয়, যুদ্ধের কারণে বিশ্বের প্রায় সব দেশেই পণ্যমূল্য বেড়েছে। যুক্তরাজ্যে এখন মানুষ খাবার বাঁচাতে দুই বেলা খাচ্ছে। কিন্তু আমাদের দেশে তো এরকম কিছু হয়নি।

বুধবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতাল ও ইনস্টিটিউটে জাতীর পিতার কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের ৫৯তম জন্মদিন ও হাসপাতালের মাল্টিপারপাস ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষ যাতে অর্থনৈতিক চাপে না পড়ে এজন্য কিছু লোডশেডিং হচ্ছে। এগুলো তো সাময়িক সমস্যা। কিন্তু বিএনপি-জামায়াতের মতো দেশ এখন কোনো অকার্যকর, ব্যর্থ ও দুর্নীতিতে পরপর চারবার চ্যাম্পিয়ন নয়। করোনার এত বড় ধাক্কার পরও বাংলাদেশের মানুষ না খেয়ে নেই। দেশের মানুষকে খাবার বাঁচাতে দুই বেলা খেতে হচ্ছে না।

জাহিদ মালেক বলেন, বিএনপি-জামায়াত বর্তমান সরকারের কোনো উন্নয়নই চোখে দেখতে পায় না। তারা শুধু ক্ষমতায় যাওয়ার জন্যই রাজনীতি করে। তারা দেশের মানুষের কল্যাণের কথা ভেবে রাজনীতি করে না। ক্ষমতার লোভে তারা পেট্রোল দিয়ে মানুষ পুড়ে মারতেও দ্বিধা করে না। তারা সামান্য অজুহাতেই মানুষকে বিভ্রান্ত করতে চায়।

তিনি বলেন, সিলেটে বন্যার সময় তারা বন্যার্ত মানুষের জন্য কিছুই করেনি। তাদের সময় বিদ্যুৎ মাঝে মাঝে আসতো, বিদ্যুৎ থাকতোই না। তারা অফিসে, ঘরে এবং কলকারখানায় কোথাও বিদ্যুৎ দিতে পারেনি।

মন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের ভালো থাকা নিয়ে ভাবেন, আর বিএনপি-জামায়াত দেশকে লুটেপুটে খাওয়ার জন্য ক্ষমতায় যেতে চায়। এগুলো দেশের মানুষ বোঝে। আর বোঝে বলেই দেশের মানুষ শেখ হাসিনার সঙ্গে আছে। দেশের মানুষ আবারো শেখ হাসিনাকেই ক্ষমতায় এনে সেটাই প্রমাণ করে দেবে।

ডেঙ্গু পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ডেঙ্গু পরিস্থিতি বৃদ্ধির জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কোনো হাত থাকে না। স্বাস্থ্যখাত চিকিৎসা দিতে পারে, কিন্তু মশা মারার কাজ স্বাস্থ্যখাতের নয়। ডেঙ্গু রোগী বৃদ্ধি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে পর্যাপ্ত প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ডেঙ্গু প্রকোপ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দ্রুততম সময়ে ঢাকার ডিএনসিসি হাসপাতালের ১০০০ বেড থেকে ৫০০ এবং বিএসএমএমইউ এর নতুন নির্মিত ফিল্ড হাসপাতালের ৪০০ বেড প্রস্তুত করা হয়েছে। আরো লাগলে আরো বৃদ্ধি করা হবে। তবে মশা কমাতে হবে এবং একইসঙ্গে দেশের মানুষকে মশা যাতে না কামড়াতে পারে সে বিষয়েও সচেতন থাকতে হবে। বাড়িতে রাতে ঘুমানোর আগে মশারি লাগিয়ে ঘুমাতে হবে এবং বাসা বাড়ি পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব ড. মো. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এবিএম খুরশীদ আলমসহ আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় অধ্যাপক ডা. মাহমুদ হাসান, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. সিরাজুল ইসলাম শিশির, স্বাচিপ সভাপতি অধ্যাপক ইকবাল আর্সলান এবং গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতাল ও ইনস্টিটিউটের পরিচালক ডা. গোলাম কিবরিয়াসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

সূত্রঃ ঢাকা পোস্ট

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার.....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর.....