সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১১:০১ পূর্বাহ্ন

তেলের উৎপাদন হ্রাস নিতান্ত অর্থনৈতিক, সমালোচনার জবাবে সৌদি আরব

রিপোর্টারের নাম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২২
  • ৩৬ দেখেছেন

প্রসঙ্গ ডেস্কঃ যুক্তরাষ্ট্রের আপত্তি উপেক্ষা করে তেলের উৎপাদন কমানোর ওপেক প্লাসের সিদ্ধান্তের যে সমালোচনা হচ্ছে, তাকে ‘তথ্যভিত্তিক নয়’ নয় বলে খারিজ করে দিয়ে সৌদি আরব বলেছে, ‘ভোক্তা ও উৎপাদকদের স্বার্থ রক্ষায়’ এমন পদক্ষেপ। সৌদি আরবের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, নিতান্ত ‘অর্থনৈতিক কারণ’ বিবেচনায় নিয়ে সর্বসম্মতভাবে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর লক্ষ্য তেলের চাহিদা ও সরবরাহে ভারসাম্য রক্ষা করা এবং বাজারের অস্থিরতা নিয়ন্ত্রণে রাখা।

গত সপ্তাহে এক বৈঠকে জ্বালানি তেলের উৎপাদন দৈনিক রেকর্ড ২ লাখ ব্যারেল কমানোর ঘোষণা দেয় রপ্তানিকারক দেশগুলোর জোট ওপেক প্লাস। তাদের এই সিদ্ধান্তে পশ্চিমা বিশ্বে, বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রে ক্ষোভের পাশাপাশি উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, এমন সিদ্ধান্তের ‘পরিণতি’ সৌদি আরবকে ভোগ করতেই হবে। এজন্য মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের কয়েক দশকের পুরোনো মিত্র রাজতন্ত্রের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে নতুন করে ভাবছে ওয়াশিংটন।

যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ, রাশিয়ার তাঁবেদারি করছে সৌদি আরব। তেল উৎপাদন কমিয়ে উচ্চমূল্য সৃষ্টি করে পরোক্ষভাবে ইউক্রেন যুদ্ধের অর্থ রুশ তহবিল যোগাচ্ছে সৌদি, এমনটা মনে করছে ওয়াশিংটন।

তবে সৌদি আরব বলছে, এই সিদ্ধান্ত অর্থনৈতিক কারণে নেওয়া। এক মাস আগে বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা হয়। তখন তারা এই সিদ্ধান্ত এক মাস পেছাতে বলেছিল।

হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি ক্যারিন জ্যঁ-পিয়েরে বলেছেন, সৌদির সঙ্গে সম্পর্ক পুনর্বিবেচনা করা হবে। আগামী কয়েক সপ্তাহ ও মাস পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করবে যুক্তরাষ্ট্র।

বিবৃতিতে সৌদি আরব বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক ‘কৌশলগত’। এজন্য পারস্পরিক সম্পর্কের ওপর জোর দিতে হবে।

সূত্রঃ আজকের পত্রিকা

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার.....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর.....