সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৫:০৭ অপরাহ্ন

বিশ্বে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে মেয়েরা

রিপোর্টারের নাম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ২৪ দেখেছেন

প্রসঙ্গ ডেস্ক: অবিস্মরণীয় কীর্তিগাথা রচনা করা বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দল একের পর এক সংবর্ধনা ও পুরস্কার পেয়ে চলেছেন। গত ১৯ সেপ্টেম্বর নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে স্বাগতিক ও শক্তিশালী নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন বাংলার সোনার মেয়েরা। নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবার এমন স্বর্ণসাফল্যের পর মেয়েদের নিয়ে গোটা দেশ উচ্ছ্বসিত।

ইতোমধ্যে সাবিনা-সানজিদা-স্বপ্নারা পেয়েছেন রাজসিক সংবর্ধনা। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি থেকে ঘোষণা আসছে পুরস্কারের। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীও ঘোষণা দেয় এক কোটি টাকার আর্থিক পুরস্কারের। শুধু ঘোষণা দিয়েই থেমে থাকেনি তারা। চটজলদি প্রতিশ্রুত অর্থ সোনার মেয়েদের হাতে তুলেও দিয়েছে শৃঙ্খলার প্রশ্নে আপোসহীন সেনবাহিনী। অনেকে পুরস্কারের ঘোষণা দিলেও এখনও সেগুলো হাতে পাননি মেয়েরা। পালাক্রমে সেগুলো দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

কিন্তু সেনাবাহিনী ঘোষণা দেয়ার কয়েকদিনের মধ্যেই তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছে। মঙ্গলবার রাতে ঢাকা সেনানিবাসের আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ী বাংলাদেশ দলের ফুটবলারদের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে ১ কোটি টাকা।

চ্যাম্পিয়ন দলের খেলোয়াড়দের প্রত্যেকে পেয়েছেন সাড়ে তিন লাখ টাকা করে। বাড়তি সাড়ে তিন লাখ টাকা করে আরও সাত লাখ দেয়া হয়েছে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় ও সর্বোচ্চ গোলদাতা অধিনায়ক সাবিনা খাতুনকে।

সেরা গোলরক্ষক রূপনা চাকমা ও ফাইনালে দুই গোল করা কৃষ্ণা রানী সরকার পেয়েছেন বাড়তি দুই লাখ টাকা। এছাড়া দলের প্রধান কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন পেয়েছেন দুই লাখ টাকা। অন্য কোচ ও কর্মকর্তারা পেয়েছেন এক লাখ টাকা করে। এর পাশাপাশি সবাইকে দেয়া হয়েছে ক্রেস্ট, ট্রাকসুট ও উপহারসামগ্রী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন খেলোয়াড়দের পরিবারের সদস্যরাও। তাদেরও দেয়া হয়েছে উপহারসামগ্রী।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থেকে সবার হাতে পুরস্কার তুলে দেন সেনাবাহনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ। এ সময় আরও ছিলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চীফ অফ জেনারেল স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসান, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান, বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম র্শেদী এমপি, ফিফা কাউন্সিলের সদস্য ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের মহিলা উইংয়ের চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ।

আরও উপস্থিত ছিলেন সামরিক বাহিনীর উর্ধতন কর্মকর্তা, চ্যাম্পিয়ন দলের নারী ফুটবলারদের অভিভাবকগণ ও অন্যান্য অতিথি। পুরস্কার প্রদান ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে দেশের মুখ উজ্জ্বল করা মেয়েদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন সেনাবাহিনী প্রধান। সাফের সাফল্য দেশের ক্রীড়াঙ্গনে নতুন প্রেরণার সঞ্চার করবে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে সেনাবাহনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘এই জয়ের (সাফ জয়) অনুপ্রেরণা নিয়ে বাংলাদেশের নারী ফুটবল দল আগামীতে আরও এগিয়ে যেতে পারবে।

বিশ্বের বুকে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে বাংলাদেশের নারী ফুটবলাররা বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে আমরা সবাই দৃঢ় আশাবাদী। সেই সঙ্গে দেশের ক্রীড়াঙ্গনে এ সাফল্য নতুন প্রেরণার সঞ্চার করবে।’ সেই সঙ্গে সেনাবাহিনী প্রধান যে কোন প্রয়োজনে সর্বক্ষণ মেয়েদের পাশে থাকার ঘোষণা দেন। শুধু তাই নয়, অদম্য মেয়েদের জন্য সবসময় সেনাবাহিনীর দ্বারও খোলা বলে তিনি জানান।

সম্মান জানানোর এ ধারাবাহিকতায় বুধবার বাংলার বাঘিনীদের সংবর্ধনা দিয়েছে রূপায়ন গ্রুপ। এরপর বাংলার অগ্নিকন্যারা যাচ্ছেন তিন সপ্তাহের ছুটিতে। এই সময়ে তারা নিজ নিজ জেলা শহরে নিজেদের বাড়িতে অবস্থান করবেন বলে জানা গেছে। তবে বাংলাদেশ নারী দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুনের ফুসরত নেই। তিনি মালদ্বীপের লীগে খেলতে অচিরেই দেশ ছাড়বেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার.....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর.....