মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৬:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শারদীয় দূর্গাপূজার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ছাত্রলীগের গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক তূর্য চারঘাটে নিজ গায়ে আগুন লাগিয়ে বৃদ্ধার আত্মহত্যা রাজশাহীতে চলন্ত বাসে ঢুকে গেল বিদ্যুতের খুঁটি নগরায়নের নয়া মহামারি ‘শব্দদূষণ’ রোধের দাবি তরুণদের আরইউজে সম্পাদকের ওপর হামলায় জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার জেলা শাখার নিন্দা বানেশ্বরে নাদের আলী স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ও সভাপতির হাতাহাতি ওয়ালটনের কল সেন্টারে চাকরির সুযোগ রাজশাহীর শ্রেষ্ঠ ইউএনও দুর্গাপুরের সোহেল রানা পুঠিয়া রিপোর্টার্স ইউনিটির কমিটি গঠন: সভাপতি আরিফ, সম্পাদক রুবেল তানোরে রংতুলির কাজ শেষ, থানে তোলার অপেক্ষায় প্রতিমা 

চীনের বিরুদ্ধে ‘গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের’ অভিযোগ

রিপোর্টারের নাম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ২০ দেখেছেন

প্রসঙ্গ ডেস্কঃ শিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর মুসলিমদের ওপর নির্যাতনের বিষয়ে বহুল প্রতীক্ষিত রিপোর্ট প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। সংস্থাটি তাদের রিপোর্টে চীনের বিরুদ্ধে ‘গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের’ অভিযোগ এনেছে। বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে। এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় এক বছর ধরে এই রিপোর্ট তৈরি করা হয় এবং জেনেভায় বুধবার ১১ টা ৪৭ মিনিটে তা প্রকাশ করা হয়। জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাশেলেতের চার বছর মেয়াদ শেষের ১৩ মিনিট আগে এই রিপোর্ট প্রকাশিত হয়।  বার্তা সংস্থা এএফপিকে পাঠানো এক মেইলে তিনি বলেন, আমি বলেছিলাম আমার ম্যান্ডেট শেষ হওয়ার আগে আমি এটি প্রকাশ করবো।  চীন জাতিসংঘকে এই রিপোর্ট প্রকাশ না করতে আহ্বান করেছিল। বেইজিং এটিকে পশ্চিমা শক্তির ‘প্রহসন’ বলে উল্লেখ করে।

জাতিসংঘের প্রতিবেদনে উইঘুর মুসলিম ও অন্যান্য জাতিগত সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে অপব্যবহারের দাবির মূল্যায়ন করা হয়েছে। তবে চীন এসব দাবি ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে।  তদন্তকারীরা বলেছেন, তারা নির্যাতনের ‘বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ’ উন্মোচন করেছেন, যা সম্ভবত ‘মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ’। তদন্তকারীরা সংখ্যালঘুদের অধিকারকে দমন করার জন্য অস্পষ্ট জাতীয় নিরাপত্তা আইন ব্যবহার করে এবং স্বেচ্ছাচারী আটকের ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করার জন্য চীনকে অভিযুক্ত করেছে। প্রতিবেদনটি জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার কার্যালয় থেকে অনুমোদিত করা হয়। বলা হয়েছে, বন্দিদের সঙ্গে অপরাধমূলক কাজ করা হয়েছে,  যার মধ্যে যৌন এবং লিঙ্গ-ভিত্তিক সহিংসতার ঘটনা রয়েছে।  এর আগে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে বলা হয়, বিভিন্ন বন্দিশিবিরে ১০ লাখের বেশি উইঘুর মুসলিমকে বন্দি করে রেখেছে চীন।
ইত্তেফাক

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার.....

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরো খবর.....