বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:০১ অপরাহ্ন

বাঁচানো গেলো না সৈকতে ভেসে আসা ডলফিনটিকে

রিপোর্টারের নাম
  • সময় : মঙ্গলবার, ২৩ আগস্ট, ২০২২
  • ৩০ দেখেছেন

প্রসঙ্গ ডেস্কঃ এডিএম বলেন, স্থানীয়রা পাটুয়ারটেকেরে অদূরে সমুদ্র সৈকতে একটি ডলফিন দেখে খবর দেয়। তখন সেখানে দায়িত্বরত বিচ কর্মীদের পাঠানো হয়। পরে তারা ডলফিনটি জীবিত দেখতে পেয়ে সাগরে ছেড়ে দেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু ডলফিনটি আবারও তীরে ফিরে আসে।

তিনি আরো বলেন, ডলফিনের পেট ও শরীরের কয়েকটি জায়গায় আঘাতের মতো চিহ্ন দেখা যায় বলে বীচকর্মীরা জানায়। হয়তো এ কারণে ডলফিনটি দুর্বল হয়ে গেছে। এমনকি কিছু খাচ্ছেনা। এডিএম বলেন, বিষয়টি বনবিভাগ ও সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটকে জানানো হয়। তাদের একটি প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে এটির পরিচর্যা শুরু করে।

কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের সদর রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা সমীর রঞ্জন সাহা বলেন, খবর পেয়ে দক্ষিণ বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা সরওয়ার আলম বাংলাদেশ ওশানোগ্রাফির কর্মকর্তাদের নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। ডিএফওর নির্দেশে বাংলাদেশ ওশানোগ্রাফিক রিসার্চ ইনস্টিটিউটের সহযোগিতায় ডলফিনটিকে পুনরায় সমুদ্রে ফিরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। ৫ ফুট লম্বা, ২ দশমিক ৬ ফুট বেড়, ২৮ কেজি ওজনের স্ত্রী ডলফিনটি শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে যাওয়ায় প্রচণ্ড ঢেউয়ের বিপরীতে গভীর সমুদ্রে ফেরত যেতে পারেনি।

তিনি আরো জানান, এক পর্যায়ে ভেটেনারি সার্জন ডলফিনটিকে মৃত ঘোষণা করলে মৃত ডলফিনটিকে ময়নাতদন্ত ও সংরক্ষণ করার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ রিসার্চ ইনস্টিটিউটের নিয়ে আসা হয়। ডিএফওর উপস্থিতিতে ডলফিনটির ময়নাতদন্তের উদ্দেশ্যে নমুনা সংগ্রহ করে। ডলফিনটির গায়ে কোন আঁচড় বা ক্ষত পাওয়া যায়নি, তবে ময়নাতদন্তের নমুনা সংগ্রহের সময় ফুসফুস এবং হৃদযন্ত্রের অস্বাভাবিকত্ব লক্ষ্য করা যায়। ডলফিনটি ভবিষ্যতে গবেষণা কাজে লাগানোর উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ ওশানোগ্রাফি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের কাছে সংরক্ষণের জন্য হস্তান্তর করা হয়।

সূত্রঃ ইত্তেফাক

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার.....

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরো খবর.....