মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৭:২৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শারদীয় দূর্গাপূজার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ছাত্রলীগের গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক তূর্য চারঘাটে নিজ গায়ে আগুন লাগিয়ে বৃদ্ধার আত্মহত্যা রাজশাহীতে চলন্ত বাসে ঢুকে গেল বিদ্যুতের খুঁটি নগরায়নের নয়া মহামারি ‘শব্দদূষণ’ রোধের দাবি তরুণদের আরইউজে সম্পাদকের ওপর হামলায় জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার জেলা শাখার নিন্দা বানেশ্বরে নাদের আলী স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ও সভাপতির হাতাহাতি ওয়ালটনের কল সেন্টারে চাকরির সুযোগ রাজশাহীর শ্রেষ্ঠ ইউএনও দুর্গাপুরের সোহেল রানা পুঠিয়া রিপোর্টার্স ইউনিটির কমিটি গঠন: সভাপতি আরিফ, সম্পাদক রুবেল তানোরে রংতুলির কাজ শেষ, থানে তোলার অপেক্ষায় প্রতিমা 

কক্সবাজার বিমানবন্দর থেকে নারীসহ ১১ রোহিঙ্গা আটক

রিপোর্টারের নাম
  • সময় : মঙ্গলবার, ২৩ আগস্ট, ২০২২
  • ২৬ দেখেছেন

প্রসঙ্গ ডেস্কঃ মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) বিকেল ৩টার দিকে আটক রোহিঙ্গারা হলেন, ক্যাম্প ১৭ এর ৭২ ব্লকের বাসিন্দা মৃত নজরুলের ছেলে মো. নূর, একই ক্যাম্পের আবু তাহেরের ছেলে মো. নূর, ক্যাম্প-২ এর আই ব্লকের বাসিন্দা আবুল কাশেমের ছেলে মো. আয়াজ, ক্যাম্প ২৬ এর আই ব্লকের বাসিন্দা মৃত লাল মিয়ার ছেলে আব্দুল হক, একই ক্যাম্পের আব্দুর শুক্কুরের ছেলে রবি আলম ও তার ভাই আবু বক্কার ছিদ্দিক, একই ক্যাম্পের এ/১০ ব্লকের নুর আলমের ছেলে ওসমান, ক্যাম্প-১৭ এর ৭২ ব্লকের বাসিন্দা মৃত সলিমুল্লার ছেলে রেজাউল করিম, ক্যাম্প ৮ ইস্ট এর বি/৭৪ ব্লকের নুরুল আমিনের ছেলে মো. আজিজ, ২৬ নং ক্যাম্পের আই ব্লকের দীল মোহাম্মদের ছেলে মো. ফয়সাল এবং আব্দু শুক্কুরের মেয়ে রহিমা।

৮ এপিবিএন এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মো. কামরান হোসেন তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, কক্সবাজার বিমানবন্দরে কনকোর্স হলে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স কাউন্টারের সামনে বিমানের জন্য অপেক্ষারত এক মহিলা এবং দশ জন পুরুষের গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে তাহাদের আটক করে এপিবিএন সদস্যরা। আটকের পর তারা রোহিঙ্গা বলে স্বীকার করেন। এ সময় তাদের কাছ থেকে ইউএস-বাংলা ২টি, নভোএয়ার ২টি এবং বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ৫টি টিকেট পাওয়া যায়।

এসময় পৃথকভাবে তাদের তল্লাশি করে নগদ ৩ লাখ ১৮ হাজার টাকা জব্দ করা হয়। এছাড়া ফয়সাল নামক আটক এক ব্যক্তির কাছে দুইটি ভুয়া সাংবাদিক পরিচয়পত্র, একটি আইএফআইসি ব্যাংকের ডেবিট কার্ড পাওয়া যায়। উদ্ধারকৃত মালামালসহ আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, তারা কেন ঢাকা যাচ্ছিলো, কিংবা এর সঙ্গে আরও কেউ জড়িত রয়েছে কিনা তা নিয়ে অনুসন্ধান অব্যাহত আছে। একই সঙ্গে আইনগত প্রক্রিয়া শেষে তাদের কক্সবাজার সদর থানায় হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন ৮ এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মো. কামরান হোসেন।

সূত্রঃ ইত্তেফাক

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার.....

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরো খবর.....