বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৪:২৬ অপরাহ্ন

পাওয়ার হিটিংয়ের ওষুধ খুঁজছেন সাকিবরা

রিপোর্টারের নাম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট, ২০২২
  • ১৬ দেখেছেন

প্রসঙ্গ ডেস্কঃ ক্রিকেটের গৎবাঁধা ধীরগতির ব্যাটিংয়ের ধরনই বদলে দিয়েছে টি-টোয়েন্টি সংস্করণ। এই সংস্করণে এখন সাফল্যের প্রথম সূত্রই নাকি ‘পাওয়ার হিটিং’। যে যত জোরে ব্যাট চালাতে পারবে, তাঁর সফল হওয়ার সম্ভাবনা তত বেশি। অথচ জাতিগতভাবেই এখানে পিছিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। পাওয়ার হিটিং ঠিকঠাক না পারায় গত এক যুগেও এই সংস্করণে উন্নতি করতে পারেননি তাঁরা।

গত কয়েক দিনে মিরপুরে কঠোর অনুশীলনে ব্যস্ত সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিমের মতো তারকা ক্রিকেটাররা। গতকাল তাঁদের সঙ্গে যোগ দিলেন সাত বছর পর টি-টোয়েন্টি দলে ফেরা এনামুল হক বিজয় ও অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। গতকাল ইনডোর আর নেট অনুশীলনে মিরপুরের মাঝ উইকেটে ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্স আর বিকেএসপির ক্রিকেট উপদেষ্টা নাজমুল আবেদীন ফাহিমের সঙ্গে পাওয়ার হিটিংয়ে মনোযোগী ছিলেন সবাই।

স্কিল হিটিং ব্যাটার হিসেবে পরিচিত মুশফিককে পাওয়ার হিটিংয়ে কিছুটা নড়বড়ে মনে হলেও শেষটা দারুণ করেছেন। ৩৬০ ডিগ্রিতে ব্যাটিংয়ের চেষ্টা করেছেন তিনি। মুশফিকের পাওয়ার হিটিং নিয়ে কোচ ফাহিমের ব্যাখ্যা, ‘মুশফিকের ক্ষেত্রে (পাওয়ার হিটিং) আমি খুব আশাবাদী। আশা করেছিলাম, জিম্বাবুয়েতে পাওয়ার হিটিংয়ের সুযোগ নেবে। কেন নেয়নি জানি না। তবে সে নিজেও ধীরে ধীরে বুঝতে পারছে পাওয়ার হিটিং কী। আজ (গতকাল) কিছু ভালো শট খেলেছে। সামনে আর দুই-চার দিন অনুশীলন করলে এটা আরও বেশি আয়ত্তে আসবে।’

বাংলাদেশ যে পাওয়ার হিটিংয়ে কতটা দুর্বল, সেটা পরিসংখ্যানই বলে দেবে। নিজেদের সর্বশেষ ১১ ম্যাচে টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে কম ছক্কা হাঁকানো দলগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ একটি। এই সময়ে ৩ দশমিক ৮২ গড়ে মাত্র ৪২টি ছক্কা বাংলাদেশের। সবার ওপরে থাকা ইংল্যান্ড ৮ দশমিক ২৭ গড়ে মেরেছে ৯১টি ছক্কা, যেটি বাংলাদেশের প্রায় দ্বিগুণ। এশিয়া কাপে বাংলাদেশের দুই গ্রুপ প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তানও এই তালিকায় বাংলাদেশের ওপরে। গত পাঁচ ম্যাচে সর্বোচ্চ ৫টি ছক্কা মেরেছেন সাকিব।

টি-টোয়েন্টি সংস্করণে পাওয়ার হিটিংয়ের পুরোনো দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে শিষ্যদের প্রতি বাংলাদেশ ব্যাটিং পরামর্শক কোচ জেমি সিডন্সের বার্তা, ‘শরীরকে যত বেশি সম্ভব ব্যবহার করা।’ মিরাজের দারুণ একটি ছক্কার ভিডিও ফেসবুকে পোস্ট করে সিডন্স লিখেছেন, ‘আপনি যখন ক্রিস গেইলের মতো হবেন না (জন্মগতভাবে), তখন আপনার নিজের শরীরকে যত বেশি সম্ভব ব্যবহার করতে হবে।’ অনুশীলনে ঘাটতি নেই, এখন মূল মঞ্চে ঠিকঠাক প্রয়োগ করা গেলেই হয়।

সূত্রঃ আজকের পত্রিকা

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার.....

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরো খবর.....